রামেকে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ নিয়ামতপুরের আসমার পাশে দাঁড়ালেন এমপি সাধন চন্দ্র ও জেলা প্রশাসক মো: মিজানুর রহমান

মাহবুবুজ্জামান সেতু নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের বালিচাঁদ গ্রামের হত দরিদ্র কৃষক আকতার হোসেন ও গৃহবধূ লছিরন বেগমের মেধাবী মেয়ে আসমা খাতুন এবার রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজে সুযোগ পেলেও অর্থাভাবে ভর্তি হতে পারছে না।

সে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে ২৬৭ নম্বর পেয়ে উত্তীর্ণ হয়ে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পায়।

মেয়ে মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাওয়ায় হতদরিদ্র বাবা মা ও তার পরিবারের লোকজন গর্বিত ও আনন্দিত।

আসমা খাতুনকে ১৫ অক্টোবর থেকে ২৫ অক্টোবরের মধ্যে ভর্তি হতে হবে।

কিন্তু এত বড় একটা দূর্লভ সুযোগ পাওয়ার পরেও প্রয়োজনীয় অর্থের অভাবে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজে ভর্তির সুযোগ ব্যর্থ হওয়ার পথে।

এই খবর নওগাঁ জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমানের নজরে পরলে ওই হতদরিদ্র কৃষকের মেয়ে আসমা খাতুনকে মেডিক্যাল কলেজে ভর্তির জন্য বৃত্তি হিসাবে নগদ ১৫ হাজার টাকা এবং বাবু সাধন চন্দ্র মজুমদার ১০ হাজার টাকা প্রদান করেন এবং আসমা খাতুনের বই কিনতে প্রয়োজনীয় অর্থ দিবেন।

আসমা খাতুনের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান পাশে দাঁড়ানোর ফলে হয়তবা অনেকেই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিবেন এমনি প্রত্যাশা সচেতন মহলের।

আমাদের জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান শিার মান উন্নয়নে কোমড় বেঁধে স্কুল,মাদ্রাসা ও কলেজে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

এছাড়াও তিনি মাদক,সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ,সহিসংসতা ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে জেলা ও উপজেলায় কঠোর দায়িত্ব পালন করছেন প্রশংসনীয়।

error: লাল সবুজের কথা !!