ভারতে ভারী বৃষ্টিপাতে ২৪ জনের প্রাণহানি, নিখোঁজ ২২

ভারতের হিমাচলপ্রদেশে ভারী বর্ষণে দুই নেপালি নাগরিকসহ অন্তত ২৪ জনের প্রাণহানি হয়েছে। এ ছাড়া আহত হয়েছেন আরও ৯ জন।
সোমবার (১৯ আগস্ট) এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম। ভারতের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ, রোববার ভারতের হিমাচলপ্রদেশে ভারী বর্ষণে ২৪ জন প্রাণ হারিয়েছেন। দেশটির উত্তরাঞ্চলে ভারী বৃষ্টিপাতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। ডুবে গেছে হিমাচলপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড এবং পাঞ্জাবের বহু এলাকা। হিমাচলের অনেক জেলারই যোগাযোগব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন রয়েছে। বৃষ্টিপাত ও বন্যার কারণে কাকলা ও শিমলাসহ বিভিন্ন স্থানে ট্রেন সেবা ব্যাহত হচ্ছে।

সেখানে স্কুলে যেতে পারছে না শিক্ষার্থীরা। সোমবার শিমলা, সোলান, কুল্লু ও বিলাসপুর জেলার সব স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকবে বলে সরকারিভাবে ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া প্রদেশটির কুল্লু শহরে দুদিন ধরে আটকে থাকা ২৫ পর্যটককে উদ্ধার করা হয়েছে বলে খবরে প্রকাশ।

জানা গেছে, উত্তরাখণ্ড ও পাঞ্জাবের অবস্থাও হিমাচলের মতোই। ভারী বর্ষণে উত্তরাখণ্ডে তিনজনের প্রাণহানিসহ অন্তত ২২ জন নিখোঁজ রয়েছেন। পাঞ্জাবেও ভারী বর্ষণের ফলে বাড়ির ছাদধসে অন্তত তিনজন নিহত হয়েছেন বলে সংবাদমাধ্যমে জানানো হয়েছে।

যমুনা এবং অন্যান্য নদীর পানি বিপৎসীমার কাছাকাছি হওয়ায় দিল্লি, হরিয়ানা, পাঞ্জাব ও উত্তরপ্রদেশে বন্যার সতর্কতা জারি করা হয়েছে।
অন্যদিকে ভারতের দক্ষিণাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ। সেখানে জনজীবন প্রায় বিপর্যস্ত।
সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের কেরালায় বন্যায় নিহত বেড়ে ১২১ ও কর্নাটকে নিহত বেড়ে ৭৬ জনে দাঁড়িয়েছে।

এ বছরে ভারতে ভারী বর্ষণ ও বন্যায় হাজারেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন বলে দেশটির একটি জরিপে প্রকাশ হয়েছে। বন্যা আরও প্রকোট আকার ধারণ করতে পারে বলে আশঙ্কা করছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। প্রাণহানির সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করছেন তারা।

error: লাল সবুজের কথা !!