দেবিদ্বারে স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদ সভা

57
প্রতিবাদ সভা দেবিদ্বার উপজেলা
প্রতিবাদ সভা দেবিদ্বার উপজেলা

অাবুল কালাম,দেবিদ্বার (কুমিল্লা) প্রতিনিধি: কুমিল্লা উত্তর জেলার স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা,আগামীর সভাপতি পদপ্রার্থী,সাবেক জনপ্রিয় ছাত্রনেতা,রাজপথের জননেত্রী শেখ হাসিনার বিশ্বস্ত ভ্যানগার্ড,জামাত-বিএনপির আতঙ্ক,হাজার হাজার তরুন প্রজন্মের আশার প্রতিক,যার ডাকে হাজার হাজার নেতা-কর্মিরা রাজপথে মূহর্তেই ছোটে আসে,সময়ের সাহসী সন্তান,এই সোগ্লান কে সামনে রেখে বাগুর মাদক নির্মূল কমিটির আহবায়ক,কুমিল্লা উঃ জেলা আইন সহায়ক (আসক) এর সাধারস সম্পাদক সরকার মো. লিটন’র বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বানোয়াট মামলায় হয়রানী করার প্রতিবাদে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল শনিবার বিকাল সাড়ে ৪টায় দেবিদ্বার উপজেলা ও পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের আয়োজনে স্থানীয় একটি মিলনায়তনে প্রতিবাদ সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহবায়ক হাজী মো. শহীদুল্লাহ খাজা। উত্তর জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সদস্য মো. সাদ্দাম হোসেন’র পরিচালনায় প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন যুগ্ম আহবায়ক সাবেক জিএস মো. আবদুল মান্নান মোল্লা, কুমিল্লা উত্তর জেলার স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা সরকার মো. লিটন, পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মো. আলাউদ্দিন, সাধারন সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক, জিয়ারউর রহমান প্রমূখ

প্রতিবাদ সভায় বক্তরা বলেন, কিছুসংখ্যক আওয়ামী লেবাসধারী বিএনপি-জামায়াতের সাথে আতাঁত করে প্রকৃত আওয়ামীলীগ ও তার অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে মিথ্যা বানোয়াট মামলায় জড়িয়ে ঢাকায় বসে সংবাদ সম্মেলন করে। সরকার লিটন ছাত্রজীবন থেকে মাদকের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করে আসছে অথচ তাকে মিডিয়ায় বানানো হয়েছে মাদক সম্রাট ! যার বিরুদ্ধে মাদক নিয়ে একটি সাধারণ ডায়রি পর্যন্তও নেই তিনি নাকি মাদকের গডফাদার? এমন ঘৃণ্য ও বিকৃত মানুষিকতার মানুষ আওয়ামী পরিবারের কেউ হতে পারে না। বক্তরা আরও বলেন, তারা লিটন সরকারকে ভাগে আনতে না পেরে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন চক্রান্ত শুরু করে দিয়েছে।

এই চক্রান্তের কাছে বঙ্গবন্ধু ও জননেত্রী শেখ হাসিনার সৈনিকরা মাথা নোয়াতে শেখে নাই সেই ধারণা তাদের নেই। আমরা তীব্র কণ্ঠে বলে দিতে চাই, এমন চক্রান্ত করে রাজী মোহাম্মদ ফখরুলের কিছু করা যাবেনা। তার প্রতিটি সৈনিক ত্যাগ করতে জানে, লোহার প্রাচীরের মত শক্ত, তাদের ধমানোর চেষ্টা করা বোকার রাজ্যে বসবাস করার সমান।

জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু
জয় লিটন সরকারের জয়। বলে বক্তব্য শেষ করেন।