ঝিনাইদহে আবার গৃহবধূর লাশ নিয়ে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

5

সাহিদুল এনাম পল্লব, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি : ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বাসুদেরপুর বাজারের গৃহবধূ শাপলার লাশ নিয়ে বিক্ষোভ ও মানব বন্ধন করেছে ঐ গ্রামের শত শত সাধারণ মানুষ এবং নিহতের পরিবার- আত্বীয়-স্বজনরা।

শনিবার লাশটি গ্রামে পৌছালে গ্রামের লোকজন লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে ও বাসুদেবপুর বাজারে গিয়ে মানব বন্ধন করে। মানব বন্ধনে আসা জনসাধারণ দাবী করে যে শাপলা আত্মহত্যা করেনি তাকে হত্যা করা হয়েছে। তারা শাপলার হত্যাকারীদের ফাঁসি দাবী করে।

নিহতের মাতা তাছলিমা জানান, তিন বৎসর পুর্বে সদর উপজেলার মথুরাপুর গ্রামের নাসির মন্ডলের ছেলে নয়নের সাথে বড় মেয়ে শাপলার বিয়ে হয়। এরপর থেকে শ্বশুর মেয়েকে কুপ্রস্তাব দিত। একবার সে বাড়ীতে এসে আর যেতে চায়নি। পরে তাকে বুঝিয়ে শ্বশুর বাড়ী পাঠানো হয়। এরপর গত বুধবার শাপলার শ্বাশুরী মেয়ে বাড়ী গেলে শ্বশুর জোরপুর্বক ধর্ষন করতে গেলে চিৎকার করলে প্রতিবেশীরা চলে আসে। এঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে জামাই নয়ন মেয়েকে নির্যাতন করে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে রাখে। প্রতিবেশীরা উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এরপর অবস্থার অবনতি হলে ঢাকায় রেফার্ড করে ডাক্তার। পরে বৃহস্পতিবার রাতে মারা যায় শাপলা। শাপলার শরীরের বিভিন্ন জাইগা নির্যাতনের চিহ্ন রয়েছে।

মহিলা মেম্বর লাকী খাতুন জানান, শাপলা নরম স্বভাবের মেয়ে ছিল। আগেও এমন অত্যাচার করতো। সে মুখ বুঝে সহ্য করত।

বাসুদেবপুরের মেম্বর ফরিদ জানান, শাপলা হত্যার সুষ্ট বিচার হোক। আইনের আও্রতায় নিয়ে এসে শাপলার স্বামী নয়ন ও শ্বশুর নাসির মন্ডলের বিচার করা হোক। ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি জানান, এঘটনায় একটি মামলা হয়েছে।

উল্লেখ যে গত ২২ শে এপ্রিল শৈলকূপার গোয়াল খালী গ্রামে সোনিয়া নামে এক গৃহবধূ নির্যাতনে আত্মহত্যা করে তার নির্যাতনের বিচারের দাবীতে ভাটই বাজারে সড়ক অবোরোধ করে বিক্ষোভ করে এলাকাবাসী।