সর্বশেষ সংবাদ

২৫ জুলাই কেশবপুরের দুই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান ও মেম্বার পদে উপ নির্বাচন

আজিজুর রহমান, কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি: আগামী ২৫ জুলাই কেশবপুরের বহুলালোচিত মজিদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে ও পাঁজিয়া ইউনিয়নের ০৯ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ড মেম্বার পদে উপ নির্বাচন। এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন ২ জন প্রার্থী, তারা হলেন আওয়ামীলীগ সমর্থিত গাজী গোলাম সরোয়ার (নৌকা ) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হুমায়ুন কবীর পলাশ (আনারস)। ইউনিয়নটিতে দ্বি-মুখী নির্বাচন বেশ জমে উঠেছে। অপর দিকে ওয়ার্ড মেম্বার পদে ৪ জন প্রার্থী রয়েছেন। তারা হলেন সিরাজুল ইসলাম (মোরগ), জাহাঙ্গীর আলম (ফুটবল), আকবর হোসেন (নলক’প) ও শরিফুল ইসলাম (তালা)। নির্বাচনী মাঠে শরিফুল ইসলাম না থাকায় এখানে ত্রি-মুখি নির্বাচন হচ্ছে বলে সাধারণ ভোটাররা জানান।

মজিদপুর ইউনিয়নের জনপ্রিয় চেয়ারম্যান আবু বকর আবু হত্যাকান্ডের দীর্ঘ ৯ মাস পর উপ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আগামী ২৫ জুলাই। স্বতন্ত্র প্রার্থী হুমায়ুন কবীর পলাশ নিহত চেয়ারম্যান আবু বকরের স্নেভাজন হিসেবে এলাকার ব্যাপক সমর্থন ইতোমধ্যে গড়ে তুলেছেন।

এলাকাব্যাপী প্রচারে এগিয়ে আছেন আনারস প্রতিকের প্রার্থী হুমায়ুন কবীর পলাশ। এলাকার মানুষ তাকে একজন সৎ ও যোগ্য প্রার্থী হিসেবে বেছে নিয়েছেন। অপর দিকে বিগত নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী গাজী গোলাম সরোয়ার নিহত চেয়ারম্যানের সাথে নির্বাচন করে পরাজিত হন। তিনিও এ নির্বাচনকে দেখছেন মর্যাদার লড়াই হিসেবে। আর মাত্র ক দিন বাদেই ভোট প্রার্থীদের নাওয়া খাওয়া বন্ধ প্রায়। কর্মী সমর্থকরা ছুটছেন তাদের পছন্দের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে। ভোটাররা প্রার্থী যাচাইয়ে করছেন চুলচেরা বিশ্লেষণ। তাদের অভিমত তারা তাকেই নির্বাচিত করতে চান, যাকে ডাকলেই পাওয়া যাবে।

এলাকার উন্নয়নে ভুমিকা রাখেন , গরীব দুখি মানুষকে সাথে নিয়ে চলবেন তিনি পাবেন তাদের ভোট। বিজয়ের ব্যাপারে দু জনই আশাবদী। স্বতন্ত্র প্রার্থী হুমায়ুন কবীর পলাশ সাংবাদিকদের জানান, মজিদপুর ইউনিয়নের মানুষ তাকে বঞ্চিত করবেন না। এ ছাড়া অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপ্ক্ষে নির্বাচন হলে তিনি বিজয়ের ব্যাপারে যথেষ্ট আশাবাদি। অনুরুপ আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন অপর প্রার্থী গাজী গোলাম সরোয়ার ।

আগামী (২৫ জুলাই) বৃহষ্পতিবার এ ইউনিয়নের ১৭ হাজার ৬১৫জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করবেন। অপর দিকে পাঁজিয়া ওয়ার্ড মেম্বার পদে ত্রিমুখি প্রতিদ্বন্ধিতার আভাস দিয়েছেন স্থানীয় ভোটাররা। তাদের অভিম এ ওয়ার্ডে ২হাজার ৩শত ৭৫ ভোটারের ভিতর ৩ জন প্রার্থী রয়েছেন। হদ ও পাঁজিয়া ডাঙ্গী নিয়ে এ ওয়ার্ড গঠিত। এখানে হদ এলাকায় প্রার্থী রয়েছেন ২ জন ও বৃহত্তর পাঁজিয়া এলাকায় প্রার্থী রয়েছেন ১ জন। উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রির্টানিং অফিসার মোঃ বজলুর রশিদ সাংবাদিকদের জানান, মজিদপুর ইউনিয়নের ১০ টি ভোট কেন্দ্র ও পাঁজিয়া ইউনিয়নের একটি মোট ১১ টি ভোট কেন্দ্রই অধিক গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে চি‎হ্নিত করা হয়েছে।

থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শাহিন জানান, নির্বাচন অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে প্রতিটি ওয়ার্ডকে নিরাপত্তার চাদরে মোড়ানো হয়েছে। কোন প্রকার বিশৃঙ্খলা করার সুযোগ নেই।

error: লাল সবুজের কথা !!