১৫ দফা দাবিতে ৩ বিভাগের সাথে সাতক্ষীরায় চলছে পেট্রোল পাম্প ধর্মঘট: দূর্ভোগ চরমে

মো: আজিজুল ইসলাম (ইমরান): ১৫ দফা দাবিতে রোববার সকাল থেকে রাজশাহী, রংপুর ও খুলনা বিভাগের সব পেট্রোল পাম্পের সাথে সাতক্ষীরায় অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু হয়েছে। তিন বিভাগেরই পাম্প থেকে জ্বালানি তেল উত্তোলন, বিতরণ ও পরিবহন বন্ধো রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। জ্বালানি তেল বিক্রি বন্ধের প্রথম দিনেই দুর্ভোগ দেখা দিয়েছে সাতক্ষীরায়।

ধর্মঘটের কারণে রবিবার সকাল থেকে সাতক্ষীরার কোনো পেট্রোল পাম্পে জ্বালানি তেল বিক্রি করা হচ্ছেনা। এর ফলে জ্বালানি তেল না পেয়ে যানবাহন চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। যারা ধর্মঘটের খবরে আগাম জ্বালানি তেল সংগ্রহ করেছিলেন তারাই কেবল মোটরসাইকেলসহ অন্যান্য যানবাহন চালাতে পারছেন।এদিকে সদরের বিভিন্ন তেল পাম্পে সরজমিনে যেয়ে দেখা যায়, বিভিন্ন মটর যানের মলিকরা তেল নেওয়ার জন্য পাম্পে গিয়ে তেল না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে।

তেল গ্রহীতার তালিকায় মটর সাইকেল চালকদের সংখ্যাই বেশি। এদিকে সাধারণ মানুষের অভিযোগ তেল পাম্পে তেল দিচ্ছে না,আর এর এই সুযোগে খোলা বাজারে তেলের দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন অসাদু ব্যবসায়ীরা। ৮৬.১০ টাকার পেট্রোল খোলা বাজারে আজকে ১০০টাকা লিটার বিক্রি হয়েছে।

সাধারণ মানুষের অভিযোগ যে তেল পাম্পে পেট্রোল ৮৬.১০ টাকা লিটার বিক্রি হচ্ছিল সেই তেল পাম্পের সামনে এক ধরনের অসাধু ব্যবসায়ীরা ১০০ টাকা লিটার দরে পেট্রল বিক্রি করছে। কিছু আগেও সতক্ষীরায় নির্ধারিত মূল্য থেকে বেশি দামে লবন বিক্রির দায়ে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে জেল জরিমানা প্রদান করা হয়েছে। অল্প দিনের ব্যবধানে সেই প্রবণতা আবার দেখা দিয়েছে আমাদের শহরে।

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ব্র²রাজপুর ভাই ভাই ফিলিং ষ্টেশনের স্বত্ত্বাধিকারি মোস্তাফিজুর রহমান জানান, কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক ভোর ৬টা থেকে তারা ধর্মঘট পালন করছেন। এ কারণে সকাল থেকেই ফিলিং স্টেশন থেকে আর কাউকে জ্বালানি তেল দেওয়া হচ্ছে না। তাদের ১৫ দফা দাবি না মানা পর্যন্ত এ ধর্মঘট অব্যাহত থাকবে বলে তিনি আরো জানান। পেট্রোল পাম্পে তেল নিতে আসা ত্রেতা মিলবাজার এলাকার আয়াতুল্লা মুজাহিদ জানান, ধর্মঘটের খবরটা ভাল ভাবে প্রচার করা হয়নি। ফলে হঠাৎ করেই চরম দুর্ভোগে পড়েছেন তারা।

এমন অবস্থায় খোলা বাজারেও পেট্রোল, অকটেন ও ডিজেল মিলছে না। আর যা মিলছে তা অনেক দাম বেশি এবং অপর্যাপ্ত। বাজারে তেল নিয়ে চরম অস্থিতিশীলতা বিরাজ করছে। এদিকে, হঠাৎ করেই জ্বালানি তেল সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সংশ্লিষ্ট যানবাহন মালিকরাও পড়েছেন দুর্ভোগে। জ্বালানি তেল না পেয়ে সাতক্ষীরার অনেকেই যানবাহন চালাতে পারছেন না।

error: লাল সবুজের কথা !!