সাম্বর মানেই দক্ষিণ ভারতীয় খাবার, এমন ভাবার কোনও কারণ নেই

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ সাম্বর শব্দটা শুনলেই দক্ষিণ ভারতীয় খাবার-দাবারের কথাই মাথায় আসে। ধোসার সঙ্গে সাম্বর, ইডলি নিলেও সাম্বর দক্ষিণ ভারতীয় বেশির ভাগ মুখরোচক পদের সঙ্গেই এটি পরিবেশন করা হয়। কিন্তু জানেন কি সাম্বর আসলে দক্ষিণ ভারতীয় খাবারই নয়! এই পদটি খাঁটি মারাঠি। শিবাজীর মারাঠা সম্রাজ্যের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে সাম্বর রসনার ইতিহাস! অন্তত এমনটাই দাবি চেন্নাইয়ের ক্রাউন প্লাজা রেস্তোরাঁর এক্সিকিউটিভ শেফ প্রবীণ আনন্দের।

সাম্বরের ইতিহাস সম্পর্কে বলতে গিয়ে তাঞ্জাভুর মারাঠা সম্রাজ্যের প্রসঙ্গ টেনে প্রবীণ জানান, দাক্ষিণাত্যের তাঞ্জাভুরে যা একসম চোল রাজাদের আধিপত্ব ছিল তা শিবাজী-পুত্র সাম্ভাজী ভোঁসলের আমলে মারাঠা সম্রাজ্যের দখলে চলে আসে। শিবাজী ও তাঁর উত্তরসূরীদের নেতৃত্বে মারাঠা শক্তির উত্থান দক্ষিণ ভারতের রাজনৈতিক ইতিহাসে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ একটি ঘটনা।

সে সময় পশ্চিমে গঞ্জাম থেকে দক্ষিণে তাঞ্জাভুর পর্যন্ত বিশাল এলাকা মারাঠা শক্তির নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। শোনা যায়, সাম্ভাজী ছিলেন অত্যন্ত ভোজন রসিক। তাঁর সময় নানা ধরনের, নানা স্বাদের পদ তৈরি হত মারাঠা হেঁসেলে। প্রবীণ জানান, তাঁর আমলেই নিরামিষভোজী ব্রাহ্মণদের জন্য অরহর ডালের সঙ্গে নানা রকম মশলা মিশিয়ে মুখরোচক একটি পদ বানানো হত। অরহর ডালের এই পদটিকে বলা হত ‘আমতি’। শোনা যায় এটি সাম্ভাজীর অত্যন্ত প্রিয় পদ ছিল। তাই পরে এটির নাম বদলে সাম্ভাজীর নামানুসারে ‘সাম্বর’ রাখা হয়। এ বিষয়ে অবশ্য মতান্তরের অবকাশ রয়েছে।

প্রবীণ জানান, শুধু দক্ষিণ ভারতেই নয়, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে সাম্বরের নানা রকমের রেসিপি রয়েছে। তাই সাম্বর মানেই দক্ষিণ ভারতীয় খাবার, এমন ভাবার কোনও কারণ নেই। বরং এর সৃষ্টির সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে মারাঠাদের রসনার ইতিহাস।

error: লাল সবুজের কথা !!