সর্বশেষ সংবাদ

সাতক্ষীরা সংগ্রাম আবাসিক হোটেলে অভিযান ৬ খরিদ্দার ও ২ পতিতা আটক

মো: অজিজুল ইসলাম ইমরানঃ সাতক্ষীরা জেলা সদরের সংগ্রাম আবাসিক হোটেলে অভিযান চালিয়ে ১ নারী সহ ৮ জন গ্রেফতার করা হয়েছে। সোমবার (৭ অক্টোবর) দুপুরে শহরের সংগ্রাম আবাসিক হোটেলে সাতক্ষীরা সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মির্জা সালাউদ্দীন আহমেদ এর নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে আপত্তিকর অবস্থায় তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রায় আড়াই ঘণ্টা ব্যাপি এই অভিযানে বিপুল পরিমান কনডম ও গাজা উদ্ধার করা হয়।

উক্ত অভিযানে গ্রেফতারকৃতরা হলো যশোর জেলার কতোয়ালী থানার কাজীপাড়া মানিকতলা গ্রামের রাসেল উদ্দীনের স্ত্রী সৃষ্টি আক্তার লতা(২৩), সাতক্ষীরার কলারোয়া কাজিরহাট গ্রামের আবু বকর ছিদ্দিকের পুত্র আঃ রহমান (২৬), খুলনার জিরোপয়েন্ট এলাকার আব্দুল মজিদের পুত্র ইউনুচ আলী (৩৩), ইটাগাছা গ্রামের আতিয়ার রহমানের পুত্র শাহিনুর (৩৪), রেজাউলের পুত্র মাসুম বিল্লাহ (৩০), খড়িবিলা গ্রামের রফিকুল ইসলামে পুত্র রনি (২৩), ইটাগাছা গ্রামের আহম্মদ আলীর পুত্র মিলন গাজী (৩০), ও গড়েরকান্দা গ্রামের রফিকুল ইসলামের পুত্র ইব্রাহিম ওরফে রাজা(২৩)।

একটি সূত্র জানায়, দীর্ঘদিন ধরে সংগ্রাম আবাসিক হোটেলে দিনে ও রাতে ঘন্টা ২ থেকে ৫ হাজার টাকা চুক্তিতে বিভিন্ন এলাকার ছেলে-মেয়েরা এসে অসামাজিক কাজে লিপ্ত হতো। কেউ কেউ সংগ্রাম আবাসিক হোটেলকে ‘ডেটিং ফ্লাট’ বলেও প্রচার দিতো। এছাড়া এখানে সুন্দরী যুবতীদের এনে দেদারছে দেহ ব্যবসা চলতো বলে এলাকার লোকজন জানায়। তাছাড়া এই হোটেলের কারণে এলাকার যুব সমাজের চরম অবক্ষয় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। যা অবিভাবক হিসাবে আমাদের কাম্য না। সরকার দলীয় বা অন্য যে কোন ব্যক্তির ছত্রছায়ায় এলাকায় এ ধরনের নোংড়া কাজ চলতে পারে না। কেউ আইনের উদ্ধে না।

আমরা আইন শৃঙ্খলাবহিনীকে সাদুবাদ জানায় এই ধরনের অভিযান পরিচালনা করার জন্য। বশির আহমেদ এর মালিকানাধীন সংগ্রাম আবাসিক হোটেলটি পরিচালনা করেন পৌর যুবলীগ নেতা তুহিনুর রহমান তুহিন। এ ব্যাপারে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন গ্রেফতার কৃত সবার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

error: লাল সবুজের কথা !!