সর্বশেষ সংবাদ

শৈলকূপায় দু’গ্রুপে সংঘর্ষ আহত ২০,পুলিশ মোতায়েন

সাহিদুল এনাম পল্লব, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি : ঝিনাইদহের শৈলকূপায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে নারীসহ কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। আহতদের ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার ভোর রাতে সেহরী খাওয়ার পর থেকে দফায় দফায় শৈলকুপা উপজেলার নাকোইল গ্রামে এ সংঘর্ষ হয়। স্থানীয়রা জানান, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে নাকোইল গ্রামের জোয়াদ আলী ও বশির জোয়ার্দ্দারের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। শুক্রবার রাতে জোয়াদ আলীর সমর্থক জসিমকে মারধর করে বশির জোয়ার্দ্দারের লোকজন।

এরই জের ধরে শনিবার ভোররাত থেকে উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে নারীসহ ২০ জন আহত হন।এ সময় বাড়ি-ঘর ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়।

আহতদের মধ্যে ওই গ্রামের মৃত তোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে মুকুল হোসেন (৪৫), মনিরুল মন্ডলের ছেলে কানন মন্ডল (২৫), কালু বিশ্বাসের ছেলে জব্বার বিশ্বাস (৫০), শরিফুল ইসলাম জোয়ার্দ্দারের ছেলে জাহিদুর রহমান জোয়ার্দ্দার (৪৭), শফি জোয়ার্দ্দারের ছেলে ইসরাইল জোয়ার্দ্দার (৪৫), আনছার জোয়ার্দ্দারের ছেলে ফজলুর রহমান (৪২), মতিয়ার রহমানের ছেলে জাফর (৪০), রইজ জোয়ার্দ্দারের ছেলে রতন জোয়ার্দ্দার (৩৫), তোফাজ্জেল জোয়ার্দ্দারের ছেলে সাইদুর জোয়ার্দ্দার (৪০), মৃত খিদির জোয়ার্দ্দারের ছেলে ঠান্ডু জোয়ার্দ্দার (৪৫), বশির জোয়ার্দ্দারের ছেলে শেখর জোয়ার্দ্দার (২৫), ময়েন উদ্দিনের ছেলে সোহেল উদ্দিন (৩০), মাসুর রানার স্ত্রী রাজিয়া খাতুন (৩৫)কে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শৈলকুপার থানার ওসি কাজী আয়ুবুর রহমান জানান, নাকোল গ্রামে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী লীগের দুগ্রুপের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। বৃহস্পতিবার রাতে জসিম উদ্দিনকে প্রতিপক্ষ বশির উদ্দিনের সমর্থকরা মারধর করে।

error: লাল সবুজের কথা !!