সর্বশেষ সংবাদ

শৈলকুপায় অনুষ্ঠিত হলো গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠিখেলা

ঝিনাইদহ সংবাদঃ আবহমান বাংলার অন্যতম জনপ্রিয় অনুষঙ্গ লাঠি খেলা। তবে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে হারাতে বসেছে বাংলার অন্যতম ঐতিহ্যবাহী এ খেলা। একই সঙ্গে হুমকির মুখে পড়েছে এই খেলার সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের জীবন-জীবিকাও। তারপরও অনেককেই এখনও দেখা যায় খেলাটি খেলতে।

ঝিনাইদহের শৈলকুপার মির্জাপুর ইউনিয়নের কিসমত মাইলমারি গ্রামে এ লাঠিখেলা অনুষ্ঠিত হয় । গ্রামবাসীর আয়োজনে রোববার বিকালে ঐ গ্রামের মাঠে জনপ্রিয় এ খেরা অনুষ্ঠিত হয়।
চমৎকার এই আয়োজন দেখতে দূর-দূরান্ত থেকে হাজির হন নারী-পুরুষ সহ অসংখ্য দর্শক।
দর্শনার্থীরা জানান, আবহমান গ্রাম বাংলার অন্যতম জনপ্রিয় লাঠি খেলা। বর্তমানে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহারে মানুষ এখন ভুলতে বসেছে এক সময়ের জনপ্রিয় এই খেলাটি। এ খেলাটি সত্যি মনমুগ্ধকর। এমন আয়োজন যেন প্রতিবছর করা হয়।

বৃষ্টি উপক্ষো করে সাধারণ মানুষ ভিড় করেন এ লাঠিখেলা উপভোগ করতে। বর্ণিল সাজে লাঠি হাতে লাঠিয়ালরা অংশ নেন এ খেলায়। ঢাকঢোল আর বাঁশির তালে আনন্দে উল্লাসে মেতে ওঠেন সবাই। শিশু-কিশোর থেকে শুরু করে নানা বয়সের মানুষ রং-বেরঙের পোশাক পরে মাঠে নামেন লাঠি খেলতে। মানুষের এ উচ্ছাস প্রমাণ করে লাঠি খেলা নিয়ে মানুষের আগ্রহ আছে। কিন্তু লাঠি খেলার নতুন দল তৈরি হচ্ছে না বলে তারা জানায়। যে কারণে, এখন লাঠি খেলার আয়োজন হয় না নিয়মিত। তবে যারা লাঠি খেলেন, তাদের এ ঐতিহ্য ধরে রাখার আগ্রহ আছে।

স্থানীয় সমাজসেবক আনিচুর রহমান বলেন, পূর্বপুরুষরা এ খেলা করত। আমরা সেই ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে এ খেলার আয়োজন করেছি।