মুজিব বর্ষ: সাতক্ষীরার ব্রহ্মরাজপুর ইউপিতে নানা কর্মসূচি গ্রহণ

15

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ ভাবগাম্ভীর্যের সাথ উদযাপনের লক্ষ্যে সদর উপজেলার ৯ নং ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়ন পরিষদে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা স ম শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং ইউপি সচিবেরর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন মাছখোলা হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. শাহজাহান আলী, ডিবি গার্লস হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. এমাদুল ইসলাম দুলু, গোয়ালপোতা হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মনিন্দ্রনাথ গায়েন, ডিবি ইউনাইটেড হাইস্কুলের সহকারি প্রধান শিক্ষক মো. হাফিজুর রহমান, এনবিবিকে আল মদীনা দাখিল মাদ্রাসার সুপার এবিএম মিজানুর রহমান, শাল্যে দাখিল মাদ্রাসার সহকারি সুপার মো. রফিকুল ইসলাম, ডিবি গার্লস হাইস্কুলের সহকারি শিক্ষক এসএম শহীদুল ইসলাম, ইউপি মেম্বর মতিয়ার রহমান, নূর ইসলাম মগরেব, মো. কুরমান আলী, মো. কামরুজ্জামান, কালীদাস সরকার, মর্জিনা খাতুন, মালঞ্চ খাতুন, ভৈরবী বিশ্বাস, এনজিও প্রতিনিধি রওশন আরা, পুষ্প সরকার প্রমুখ। মুজিববর্ষ উদযাপন উপলক্ষ্যে আয়োজিত সভায় বক্তারা জাতীয় কর্মসূচির সাথে সঙ্গতি রেখে নানা কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নেন।

এসব সিদ্ধান্তের মধ্যে রয়েছে প্রত্যেক ওয়ার্ডে একটি দৃশ্যমান সড়কের দুই পাশে বৃক্ষ রোপন, ব্রহ্মরাজপুর বাজারে চার রাস্তার মুখে নান্দনিক তোরণ নির্মাণ, মাছখোলায় বেতনা নদীর তীরে হাইস্কুল সংলগ্ন একটি বটবৃক্ষ রোপন, সকল পেশাজীবী মানুষের মধ্য থেকে আলোকিত ১০০জনকে সম্মাননা প্রদান, ইউনিয়নের সকল হাইস্কুল ও মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য তুলে ধরে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ফুটবল টুর্নামেন্ট, কাবাডি টুর্নামেন্ট, ইউনিয়নের গুরুত্বপূর্ণ হাট-বাজার ও মোড়ে মুজিব জন্মশত বর্ষের শুভেচ্ছা সম্বলিত বিলবোর্ড স্থাপন, প্রত্যেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পৃথক কর্মসূচিতে ইউনিয়ন পরিষদকে সংশ্লিষ্টকরণ, গরীব, দুস্থ ও বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিক্ষার্থীদের শিক্ষা সহায়তা প্রদান, মুজিব শুভেচ্ছা র্্যালি, শিক্ষার্থীদের নিরাপদ স্বাস্থ্য ও স্যানিটেশন কার্যক্রম, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা, বাল্যবিবাহ মুক্ত, ইভটিজিং, সন্ত্রাস ও মাদক মুক্ত ইউনিয়ন পরিষদ ঘোষণাসহ অনেক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

এসব কর্মসূচি ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ১৭ মার্চ পর্যন্ত বিভিন্ন দিবসে উদযাপন করা হবে। সভায় এসব কর্মসূচি বাস্তবায়নে উপকমিটি গঠন করা হয়। প্রেসবিজ্ঞপ্তি