মানিকহার দ্বি- মূখী দাখিল মাদরাসায় মা ও অভিভাবক সমাবেশ

মঈনূল আমিন মিঠু,বিশেষ প্রতিবেদকঃ পাটকেলঘাটার ধানদিয়া ইউনিয়নে মানিকহার দ্বি- মূখী দাখিল মাদরাসায় বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় মাদরাসার সভাপতি মোঃ মনিরুজ্জামান মনির সভাপতিত্বে মা ও অভিভাবক সমাবেশ শুরু হয়।

শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন মাদরাসার সুপার মাওলানা ফজলুর রহমান। তিনি বলেন,বর্তমান সরকার শিক্ষার উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।শিক্ষিত জাতি ও দক্ষ মানব সম্পদ তৈরিতে সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষার পরিবেশের মান উন্নয়নে সরকার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করছে। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে একাডেমীক ভবন নির্মান করা হচ্ছে।

তাই সরকারের উদ্যোগ সফল করতে শিক্ষক ও অভিভাবকের এগিয়ে আসতে হবে। শিক্ষার্থীদের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। তাদেরকে আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি সম্পর্কে অবগত করতে হবে।শিক্ষক মঈনুল আমিন মিঠুর সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন সহকারী শিক্ষক রাহেলা খাতুন, সিরাজুল ইসলাম, খায়রুল ইসলাম প্রমুখ।

অভিভাবকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মোঃ মুনসুর রহমান, আব্দুল জব্বার প্রমুখ। সমাবেশে সকলের সিদ্ধান্ত মোতাবেক শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার মান উন্নয়নে মাদরাসায় দাখিল দশম ও অস্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের জন্য হোস্টেলের ব্যবস্থা করা হয়। অভিভাবকদের তাদের সন্তানদের খোঁজ খবর নেওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়। সভাপতি সাহেব তাঁর বক্তব্যে শিক্ষার্থীদের মাদরাসায় নিয়মিত উপস্থিত ও নির্ধারিত পোশাক পরিধানের প্রতি গুরুত্বারোপ করেন।তিনি আরো বলেন,একজন আলোকিত মানুষই গড়ে তুলতে পারে একটি আলোকিত সমাজ, জাতি তথা সমগ্র রাষ্ট্র। প্রত্যেক ধর্মেই বিদ্যা শিক্ষার প্রতি বিশেষ গুরুত্ব প্রদান করা হয়েছে। পশুপাখি সহজেই পশুপাখি, তরুলতা সহজেই তরুলতা; কিন্তু মানুষকে ‘মানুষ’ হতে হয় আপ্রাণ চেষ্টায়। মানুষকে সত্যিকার মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার প্রধান অনুষঙ্গ শিক্ষা; আর শিক্ষা গ্রহণের প্রথম প্রাতিষ্ঠানিক ধাপ হচ্ছে বিদ্যালয়।

একথা দ্ব্যর্থহীনভাবে বলা যায় যে, শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবক এ ত্রিমূলের সমন্বিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে একটি বিদ্যালয়ে শিক্ষার সুষ্ঠ পরিবেশ গড়ে তোলা সম্ভব। আজকের কোমলমতি শিশুরা যদি সঠিক শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে পরিবার, সমাজ তথা রাষ্ট্রের প্রতি সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করে তবেই তারা আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে উঠবে।

সম্মানিত অভিভাবকবৃন্দ এবং আমাদের অসংখ্য শুভাকাঙ্খী আন্তরিক সহযোগিতা ও মূল্যবান পরামর্শ দিয়ে আমাদের কাঙ্খীত লক্ষ্যে পৌঁছাতে সাহায্য করবেন এটাই আমাদের প্রত্যাশা। আপনাদের সহযোগিতা ও পরামর্শের সাথে আমাদের আন্তরিক চেষ্টার সমন্বয়ের মাধ্যমে আমরা আমাদের প্রত্যাশিত ফলাফল আর্জনে সক্ষম হবো ইনশাআল্লাহ্।

এসময় উপস্থিত ছিলেন মাদরাসার সহ সুপার মাওলানা ওয়ালিউল্লাহ, আব্দুর রউফ, কামরুজ্জামান, ইসরাইল হোসেন, নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

উল্লেখ্যঃ ১৯৭৫ সালে প্রতিষ্ঠিত ঐতিহ্যবাহী মানিকহার দ্বি-মূখী দাখিল মাদরাসায় আসন্ন জেডিসি পরীক্ষায় ৪৭ জন এবং দাখিল পরীক্ষায় ৫৪ জন পরীক্ষার্থী সাধারণ ও বিজ্ঞান বিভাগ থেকে অংশগ্রহণ করবে।