মানিকগঞ্জের সিংগাইরে ৪ মটরসাইকেলসহ ৩ চোর গ্রেফতার

114
মানিকগঞ্জের সিংগাইরে ৪ মটরসাইকেলসহ ৩ চোর গ্রেফতার

মোহাম্মদ মাজহারুল ইসলাম খান, মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি: মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইরে ৩জন মটরসাইকেল চোরকে আটক করেছে পুলিশ। সেই সাথে চুরি হওয়া ৪টি মটরসাইকেলও উদ্ধার করেছেন তারা।

আটককৃত চোরেরা হলো-শরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলাধীন মাঝিকান্দি গ্রামের আজিজ আকন্দের ছেলে সিরাজ আকন্দ (৩৫), ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জ উপজেলাধীন ইসলামপুর- লালহাটি গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে ওমর আলী (১৮) ও দুদু মিয়ার ছেলে সাইফুল ইসলাম (২০)। তাদের তিনদিন আগে আটক করার পর গতকাল মঙ্গলবার রিমান্ড চেয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

সিংগাইর থানা পুলিশ ও চুরি হওয়া মটরসাইকেল মালিকরা জানান, সম্প্রতি সিংগাইর উপজেলা সদরে অবস্থিত বিভিন্ন অফিস, ব্যাংক-বীমা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে থেকে ১৫-২০ টি মটরসাইকেল চুরি হয়। এতে মটরসাইকেল মালিকদের মধ্যে চোর আতঙ্ক ও অস্থিরতা বিরাজ করতে থাকে । বেশ কয়েকটি মটরসাইকেল চুরির চিত্র বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে স্থাপিত সিসি ক্যামেরায় রেকর্ড হয়।

কর্তৃপক্ষ সিসি ক্যামেরায় ধারণকৃত এ ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল করে। তাহা উপজেলাময় আলোড়ন সৃষ্টি করে। এরপর গত রবিবার দুপুরে মটরসাইকেল চোর সিরাজ আকন্দ উপজেলা ভূমি অফিসের সামনে ঘোরাফেরা করতে থাকে। এ সময় ভূমি অফিসের গাড়ি চালক মো: জীবনের দৃষ্টি আকৃষ্ট হয় তার উপড়। জীবনের দৃষ্টিতে সন্দেহের বিষ দেখে গাঁ ঢাকা দেয় সিরাজ আকন্দ। এর আধা ঘন্টা পর উপজেলা পরিষদের সামনে আবার অবস্থান নেয় সে। জীবনের উপস্থিতি টের পেয়ে সেখান থেকেও দ্রুত পলায়ন করে সিরাজ। পরে তার খোঁজে জীবন ও স্থানীয় ব্যবসায়ী দেলোয়ার কাজী পৌর শহরের বিভিন্ন স্থান তল্লাশী চালায়।

দুপুর দুইটার দিকে পৌর শহরের নিউ মার্কেটের সামনে থেকে সিরাজ আকন্দকে আটক করতে সক্ষম হন তারা। আটকের পর সে মটরসাইকেল চুরির কথা স্বাীকার করে। ওই দিনই তাকে থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। রাতে সিংগাইর থানা পুলিশ সিরাজ আকন্দকে নিয়ে ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার আব্দুল্লাহপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে তার দেওয়া তথ্যমতে সেখান থেকে ওমর আলী ও সাইফুল ইসলাম নামে চোর চক্রের দুই সদস্যকে আটক করে ও ৪টি মটরসাইকেল উদ্ধার করা করে। উদ্ধারকৃত ৪টি মোটরসাইকেলের মধ্যে দুটি মোটরসাইকেলের মালিক পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় উদ্ধারকৃত একটি মটরসাইকেলের মালিক মো: আবাবিল মঙ্গলবার সকালে আটককৃত তিন জনসহ অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

সিংগাইর থানার সহকারী পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) জিয়াউর রহমান জানান, আটককৃতদের ৭দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। রিমান্ড মঞ্জুর হলে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করে চুরি হওয়া সব মটরসাইকেল উদ্ধারের চেষ্টা করা হবে। এই চোর চক্রের সাথে স্থানীয় কেউ জড়িত থাকলে তাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানান তিনি।