সর্বশেষ সংবাদ

মহেশপুরে শিশু ধর্ষণ মামলার আসামী আটক

সেলিম,রেজা মহেশপুর(ঝিনাইদহ)প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার বাঁশবাড়ীয়া ইউপির বাগানমাঠ গ্রামের কপিল উদ্দীনের কন্যা জোনাকী খাতুন(১৪) কে ধর্ষণ মামলার আসামী জহিরুল ইসলাম(৪০) কে আটক করেছে মহেশপুর থানা পুলিশ।১৯শে নভেম্বর দুপুর ১২ টার সময় নেপা ইউনিয়নের মাইলবাড়ীয়া ঢাকাপাড়া গ্রাম থেকে জহিরুল কে আটক করা হয়।

মহেশপুর থানার এস আই কাঞ্চন মিয়া,এ এস আই আছমত আলি,সাইফুদ্দীন,গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে ধর্ষণ মামলার আসামী জহিরুল নেপা ইউনিয়নের মাইলবাড়ীয়া ঢাকাপাড়া গ্রামে অবস্থান করছে,এমন সংবাদের ভিত্তিতে মাইলবাড়ীয়া গ্রামে তল্লাশি করে তাকে আটক করেন।আটককৃত জহিরুল বাগানমাঠ গ্রামের আব্দুল খালেকের পুত্র।জহিরুল এই মামলার মূলহোতা।তার সাথে থাকা আরও তিন সহযোগিকে ধরার জোর তৎপরতা চালাচ্ছে পুলিশ।

উল্লেখ্য যে,গত ২রা মার্চ জহিরুল ও তার ৩ সহযোগীর সহযোগীতায় জোনাকী খাতুন কে প্রাণে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ৫ দফা ধর্ষণ করে।এমনকি ধর্ষণের ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে রাখে।কোনাকীর পরিবার ধর্ষণের বিষয়টি প্রথম জানতে পারলেও লোক লজ্জার ভয়ে ও শিশুটির ভবিষ্যৎ এর কথা চিন্তা করে বিষয়টি গোপন রাখে।পরবর্তীতে লম্পট জহিরুল আবারও তার সহযোগিদের সহযোগীতায় মেয়েটিকে প্রাণে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে ও ভিডিও ফেসবুকে প্রকাশ করার হুমকি ও দেয়ার কথা বলে দফায় দফায় ধর্ষণ করে আসছে ঐ লম্বাট।

গত ১৪ জুলাই রাত্রে ঘর থেকে মুখ চেপে ধরে নিয়ে বাড়ির পাশের বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করায় কতিপয় মোড়লগন গ্রাম্য শালিসে জহিরুলকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করে।জরিমানা করায় লম্পট জহিরুল ক্ষিপ্ত হয়ে ধর্ষিত জোনাকী ও তার পরিবারের লোকজনকে হত্যার হুমকী দেয়।এই ঘটনায় মেয়ের মা মায়া খাতুন বাদী হয়ে-১/জহিরুল ২/ সহযোগী ভূট্ট ওরফে ফয়জুল৩/হারন ও ৪/ কাজল।এদের বিরুদ্ধে মহেশপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।মামলা নং-৩৮/২৬১ স্বারক নং-২৬৭৭(৩)/১। বাদী ও গ্রামবাসীর দাবী জহিরুল ও তার সহযোগিদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে শাস্তি দাবী করছে।

error: লাল সবুজের কথা !!