বুকে কফ জমা প্রতিরোধ করবেন যেভাবে

একটু একটু করে এগিয়ে আসছে শীত। ঋতু পরিবর্তনের এ সময়টাতে অনেকেই সর্দি-কাশিতে আক্রান্ত হন। কারও কারও বুকে কফ জমে সংক্রমনের সম্ভাবনা বাড়ে। এটি সাধারণ সমস্যা বলে মনে হলেও সময় মতো এর চিকিৎসা করা না গেলে শ্বাসযন্ত্রের ক্ষতি করতে পারে। এ কারণে শুরু থেকেই এ সমস্যা সমাধানে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

বুকে কফ জমা সমস্যা নিরাময়ে চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার আগে ঘরোয়া কিছু উপায়ে তা কমানোর চেষ্টা করতে পারেন। যেমন-

লবণ পানি: সর্দি, বুকে জমা কফ দূর করতে সবচেয়ে সহজ উপায় হল লবণ পানি। লবণ শ্বাসযন্ত্র থেকে কফ দূর করতে সাহায্য করে। এক গ্লাস সামান্য গরম পানির সঙ্গে এক চা চামচ লবণ মিশিয়ে নিন। এটি দিয়ে দিনে ২ থেকে ৩ বার কুলিকুচি করুন।

লেবু এবং মধু
লেবু আর মধু বুকের কফ জমা দূর করে

লেবু এবং মধু: এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে লেবু আর এক চামচ মধু মিশিয়ে পান করুন। মধু শ্বাসযন্ত্রের ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করতে সাহায্য করে। এমনকি এটি বুক থেকে কফ দূর করে গলা পরিষ্কারেও ভূমিকা রাখে।

হলুদ: এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে এক চিমটে হলুদের গুঁড়া মিশিয়ে প্রতিদিন ২ থেকে ৩ বার কুচিকুচি করুন। এ ছাড়া এক গ্লাস দুধে আধা চা চামচ হলুদের গুঁড়া মিশিয়ে ফুটিয়ে নিন। সম্ভব হলে এর সঙ্গে ২ চা চামচ মধু এবং এক চিমটে গোল মরিচের গুঁড়া মিশিয়ে এই দুধ দিনে দুই থেকে তিনবার পান করুন। উপকার পাবেন।

হলুদ মেশাানো দুধ কফ প্রতিরোধ করে
হলুদ মেশাানো দুধ কফ প্রতিরোধ করে

পেঁয়াজ: একই পরিমাণের পেঁয়াজের রস, লেবুর রস, মধু এবং পানি একসঙ্গে মিশিয়ে ৫ থেকে ৭ মিনিট ফুটিয়ে নিন। এই ভাবে সামান্য গরম পানিতে দিনে ৩ থেকে ৪ বার পান করুন।

আদা: এক টেবিল চামচ আদা কুচি পানিতে মেশান। এবার ভালভাবে ফুটান। ঠাণ্ডা হলে এতে সামান্য মধু দিয়ে দিনে তিনবার এটি পান করুন। এছাড়া আদা কুচির সঙ্গে গোল মরিচের গুঁড়া, লবঙ্গের গুঁড়া, দুধ বা মধুর সঙ্গে মিশিয়ে মিশ্রণটি দিনে ৩ বার পান করুন।আরাম পাবেন।

অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার: এক কাপ সামান্য গরম পানিতে দুই চা চামচ অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার মিশিয়ে নিন। এর সঙ্গে এক চা চামচ মধু মিশিয়ে এই পানীয়টি দিনে অন্তত ২ থেকে ৩ বার পান করুন।এতেও কফ নিরাময় হবে। সূত্র : জি নিউজ

error: লাল সবুজের কথা !!