প্রার্থিতা ফিরে পেতে নির্বাচন কমিশনে খালেদা জিয়ার আপিল

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থিতা ফেরত পেতে নির্বাচন কমিশনে আপিল করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। বুধবার তার পক্ষে তিন আইনজীবী তিন সংসদীয় আসনের জন্য এই আপিল করেন। খালেদা জিয়ার জমা দেওয়া তিনটি মনোনয়নপত্রের জন্য পৃথকভাবে এ আপিল করা হয়।

কারাবন্দি খালেদা জিয়ার তিনটি মনোনয়নপত্রই বাতিল করা হয়। ফেনী ও বগুড়ার তিনটি আসনে তার মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া হলেও রিটার্নিং কর্মকর্তারা সবকটি মনোনয়ন অবৈধ ঘোষণা করেন। পরে বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, রিটার্নিং কর্মকর্তার এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তারা শেষ পর্যন্ত আইনী লড়াই চালিয়ে যাবেন।

নির্বাচনে প্রার্থিতা ফিরে পেতে গত দুই দিনে ৩১৮ জন প্রার্থী রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ইসিতে আপিল করেন।

গত ২ ডিসেম্বর সারাদেশের রিটার্নিং কর্মকর্তারা মনোনয়নপত্র বাছাই করে ৭৮৬টি অবৈধ ঘোষণা করেন। এরমধ্যে বেশিরভাগ মনোনয়নই বিএনপি মনোনীত ও স্বতন্ত্র হিসেবে জমা পড়েছিল।

এর আগে ২৮ নভেম্বর মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন পর্যন্ত ৩০০ আসনে তিন হাজার ৬৫টি জমা পড়ে। বাছাইয়ের পর সব মিলিয়ে বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা দাঁড়ায় দুই হাজার ২৭৯। এরমধ্যে নিবন্ধিত ৩৯ রাজনৈতিক দলের মোট বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা দুই হাজার ১৬৫, বৈধ স্বতন্ত্র প্রার্থীর সংখ্যা ১১৪।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের একজন প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করা হয়।

error: লাল সবুজের কথা !!