পীরগঞ্জে ল্যাম্পপোস্টের বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও মঞ্চ নাট্য পরিবেশন

13

মোঃ নয়ন হোসাইন, পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি:
শুক্রবার বিকালে একশনএইড বাংলাদেশ এর বাতিঘর প্রকল্পের তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে সচেতনতা এবং বিজ্ঞান ক্লাবের প্রয়োজনীয়তায় পীরগঞ্জ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের শহিদ মিনার প্রাঙ্গনে একটি তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক বিতর্ক প্রতিযোগিতা এবং তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক মঞ্চ নাটকের আয়োজন করেন।

‘তথ্য প্রযুক্তি অভিশাপ নয় আশীর্বাদ’ এই উক্তিটির পক্ষে পীরগঞ্জ বণিক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩জন ছাত্রী ও এর বিপক্ষে পীরগঞ্জ পাইলট উচ্চ বিদ্যায়ের ৩ জন ছাত্র তাদের যুক্তিতর্ককে এক চুড়ান্ত পর্যায়ে নিয়ে যায়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, এ এসপি সার্কেল মোসফেকুর রহমান, উপজেলা শিক্ষা অফিসার এস এম জাহিদ হাসান, উপজেলা সিনিয়র মৎস্য অফিসার ইসমত আরা, উপজেলা একাডেমিক শিক্ষা অফিসার জহুরুল ইসলাম, পীরগঞ্জ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মফিজুল ইসলাম।

সম্মানিত বিচারকদের দেয়া নাম্বারের ভিত্তিতে ‘তথ্য প্রযুক্তি অভিশাপ নয় আশীর্বাদ’ এর পক্ষে পীরগঞ্জ বণিক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালকে বিজয়ী বলে ঘোষনা করেন মডারেটরের দায়িত্বে থাকা প্রভাষক মোঃ সবুর আলম। পরে বিচারক ও অতিথিগণ বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার তুলে দেন।

এরপর যুগোপুযোগী তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক ‘বদলে যাওয়া’ নামের একটি মঞ্চ নাটক উপস্থাপন করা হয়। এমন ব্যতিক্রম নাটকটি বিপুল উৎসাহে উপভোগ করেন স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রী অভিভাবক সহ সমাজের সাধারণ মানুষ। নটকটিকে পরিচালনায় একই মঞ্চ কে মূহুর্ত্যরে মধধ্যে ল্যাম্পপোস্টের এক ঝাঁক মেধাবী তরুন বদলে ফেলে মঞ্চের দৃশ্য। মঞ্চ টিকে নিমিষেই বানানো হয় বিশাল এক চলন্ত ট্রেনে। এখানেই থেমে থাকেনি তাদের পরিবেশনা নাটকে অভনিত অভনয়কারীদের গুরুত্বপূর্ণ অভিনয় পর্বে আলোকচিত্র ও প্রজেক্টর এর মাধ্যমে বিভিন্ন চিত্র তুলে ধরা হয়।

এসময় বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করে উপস্থিত মানুষের মনে। অতিথি ও সংবাদকর্মীরা ল্যাম্পপোস্টের এই আয়োজনের ভুয়সী প্রশংসা করে। ল্যাম্পপোস্টের এই আয়োজনের ফলে ছাত্র-ছাত্রীরা তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ে সঠিক ধারনা পায়।

পুরষ্কার বিতরণী ও পুরো অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ল্যাম্পপোস্ট এর মহা-পরিচালক মহিউদ্দীন জনি, এ্যাডমিন ফিন্যান্স ম্যানেজার আব্দুল্লাহ আল মীজান, সহ-সভাপতি সাইফুর রহমান বাদশা, আরিফুজ্জামান বাবু, অর্থ সম্পাদক সবুজ রানা, রুবেল আলী, হিরা, রণি গাজী প্রমুখ।

ল্যাম্পপোস্ট এর মহা-পরিচালক মহিউদ্দীন জনি এ প্রতিবেদককে বলেন, মানবতার আলো ছড়িয়ে দিতে সমাজিক বিভিন্ন কাজে নিয়োজিত আছে আমাদের সংগঠন । আমি আমাদের সংগঠনের সকলের কাছে কৃতজ্ঞ কারণ সবাই নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে চলেছে।

এছাড়া অতিথিরা বলেন ল্যাম্পপোস্টের এমন কার্যক্রম সমাজ সচেতনতায় বিশেষ ভুমিকা রাখবে। এমন কর্যক্রম চলমান থাকলে এ জেলা সহ সারা বাংলাদেশে সমাজ সচেতনতা বৃদ্ধি করা সম্ভব।