পাটকেলঘাটা পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের সামনে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কে বালু ও কাঠের গুড়ি রাখায় সড়ক দূর্ঘটনা লেগেই আছে

212

এস.এম মফিদুল ইসলাম, পাটকেলঘাটা : খুলনা- সাতক্ষীরা মহাসড়কের পাটকেলঘাটা পল্লী বিদ্যুত অফিসের সামনে কিছু অসাধু বালু ব্যবসায়ীরা দীর্ঘ দিন ধরে বালু পাহাড় জমা করে বিক্রয় করে আস্েছ্্। এতে করে এলাকার আবাসিক মহাল বারবার ডিসি, জেলা পরিষদ ও পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিলেও তার কোন প্রতিকার নেই । উল্টো বালুর ব্যবসা আরও জমজমাট আকার ধারণ করে আছে।
এলাকা বাসির অভিযোগে জানা গেছে, পল্লী বিদ্যূত অফিসের সামনে থেকে পেট্রল পাম্প পর্যন্ত রাস্তা দুই ধার পিচ ঘেশে বালু ,ইট, কাঠের গুড়ি, নৌকা রেখে ব্যবসায়িরা বিক্রয় করছে। এতে করে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে পার্¯^বতি বাসাবাড়ির লোকজন।
তাছাড়া এই মহাসড়ক দিয়ে দৈনিক হাজার হাজার বাস, ট্রাক ,দুরপাল্লার পরিবহন লোকাল বাস সাতক্ষীরা ভোমরা স্থল বন্দর থেকে পন্যবাহি মালামাল নিয়ে এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে ঝুকি নিয়ে। তাছাড়া দুইদিকের গাড়ি যখন সাইড নেই পাশে কোন সাইকেল আরোহি থাকলে তখন সেই সাইকেল আরোহিকে পড়তে হয় বাস অথবা ট্রাকের চাকার তলায় তখন সম্পন দোষ চাপে গাড়ি চালকের উপর। এই বালু ও কাঠের গুড়ির কারনে কত নিহত হচ্ছে তার হিসাব কেউ রাখেনা । এ দিকে স্কুল কলেজের ছাএ-ছাএীরা রাস্তা পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় বালু থাকায় এরা পথ দিয়ে চলছে জীবনের ঝুকি নিয়ে । এর পুর্বে পত্র পএিকায় কয়েক দফায় এ সংবাদ প্রকাশিত হলেও সড়ক ও জনপদ বিভাগ এদিকে কোনো খেয়াল করেনা। যার কারনে দিনদিন দুর্ঘটনা লেগেই আছে। ২০১৩ সালে দাদপুর গ্রামের আজিজুর রহমানের পুএ ভাতিজা ট্রাকের চাকার তলায় পড়ে নিহত হয়। তার কিছু দিন পর ফেব্রæয়ারি মাসে ১০ তারিখে পাটকেলঘাটা জুজখোলা গ্রামের দুলাভাই এর বাড়ি থেকে নিজ বাড়ি ফেরার পথে পল্লী বিদ্যুত অফিসের সামনে পৌছালে দ্রæতি পরিবহনে চাকার তলায় পড়ে নিহত হয় অজেত আলি নামে এক ব্যক্তি । ২০১৪ সালে মার্চ মাসে ১৫ তারিখে ভোমরা স্থাল বন্দর থেকে পেঁয়াচ র্ভতি ট্রাক বালু থাকার কারণে নিয় হারিয়ে বাম পাশের বস্তির মধ্য ঢুকে যায়। এ যাএায় কোন হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। এপ্রিল মাসের ২৮ তারিখে জুজখোলা গ্রামের রফিকুল নামের এক মোটল সাইকেল চালক পাম্পের সামনের কাঠের গুড়ের কারণে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ধাক্কা দিলে ঘটনা স্থলে এক যাএি নিহত হয় এবং কিছু দিন পর রফিকুল ও মারা যান। এসব অসাধু ব্যবসায়ীরা বালু কাঠের গুড়ি গায়ের জোরে রেখে বাধা সৃষ্টি করছে। মনে করে সড়ক ও জনপদ এদের কেনা সম্পওি। এসব অসাধু ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদ করার জন্য সাতক্ষীরা সড়ক ও জনপদ বিভাগের কর্তৃ পক্ষের নিকট আহবান জানিয়েছেন পাটকেলঘাটা সচেতন মহল।