পাটকেলঘাটায় শেষ মুহুর্তে জমে উঠেছে ঈদ বাজার

33

এস.এম মফিদুল ইসলাম: পাটকেলঘাটায় শেষ মুহুর্তে জমে উঠেছে ঈদ কেনাকাটা। বুধবার হাটের বিশেষ দিন থাকায় লোক সমাগম ছিল তুলনামূলক অনেক বেশি। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী শনিবার মুসলমানদের সবচেয়ে খুশির দিন ঈদুল ফিতর পালিত হতে পারে বলে ধারণা করছেন ইসলামী চিন্তাবিদগণ। আর তাই ঈদের বিশেষ দিনকে সামনে রেখে গতকাল পাটকেলঘাটা বাজারের কেনাকাটায় উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

সরেজমিনে বুধবার পাটকেলঘাটা বাজার ঘুরে দেখা যায় তার স্বরুপ চিত্র। আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় দিনভর বাজারটি ছিল বেশ জমকালো। ছেলে, মেয়ে, বউ, বাড়ির কর্তা সকলে সমান তালে ঈদ বাজার করতে চলে এসেছেন। যার যার পছন্দের ভেতর টাকার সাধ্য মিলিয়ে কিনে নিচ্ছেন তারা। এমনই চিত্র দেখা মেলে সাউথ বাংলা শফিং কমপ্লেক্সের। মেয়েদের পছন্দের ভেতর ফ্লোর গ্রাউন্ড পোশাক এ বছর আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে। এছাড়া থ্রি-পিচ, অনপিচ, রেডিমেট কামিজ, সুতি লোন ফ্রগ, লেহেঙ্গা, সাথে লেডিস ব্যাগ কেনাকাটায় ধুম পড়তে দেখা যায়। ফ্লোর গ্রাউন পোশাক সহ অন্যান্যের দাম খুবই সাশ্রয় মুল্যে ৭৫০ টাকা হতে সাড়ে ১২শ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে বলে জানান দোকান মালিক। ছেলেদের পছন্দের ভেতর শার্ট, প্যান্ট, ফতুয়া, পাঞ্জাবী, রঙিন শর্ট পাঞ্জাবী বিশেষ উল্লেখযোগ্য। সাশ্রয়ী মুল্যে আড়াইশত টাকা থেকে সাড়ে ৪ শত টাকায় তারা কিনতে পারছেন। বউদের পছন্দের শীর্ষে এবছর পাকিজার অরগান্ডি সিল্ক, টাঙ্গাইল সিল্ক। নগদ মুল্য হিসেবে তারা ৬ শত ২০ থেকে ৭ শত টাকা রাখছেন এ দোকানী। বাচ্চাদের বাহানার পোশাকের মধ্যে ফতুয়া, সুতি টেপ, থ্রি-কোয়ার্টার, বাবা সেট যেন নতুন মাত্রা যোগ করেছে। যা নগদ মুল্যে অন্য যেকোনো দোকান থেকে সাশ্রয়ী মুল্যে ১ শত ৭০ থেকে সাড়ে ৩ শত টাকায় কিনতে পারছেন বলে এক অভিভাবক জানালেন। থানার কুমিরা গ্রাম থেকে আসা আব্দুস সালামের পুত্র শহিদুল ইসলাম, ইমদাদুল ইসলাম, তৌহিদুজ্জামান সহ অনেকে জানালেন, অন্য যেকোনো দোকান থেকে বর্তমানে সাউথ বাংলা শপিং কমপ্লেক্্ের অতি সাশ্রয়ী মুল্যে পিতা মাতা সন্তানের জন্য পোশাক কিনতে পারছি। সাউথ বাংলা শপিং কমপ্লেক্্েরর স্বত্বাধিকারী আব্দুল আলীম পলাশ জানান, পাটকেলঘাটা বাজারে একটি নতুন চমক দেখাতে চাই আর সেটি হলো নগদ এবং বাকি মুল্যের পার্থক্য। নগদ মুল্যে পণ্য কিনলে অতি সাশ্রয়ী ফ্যাসিলিটিজ যেন সকল ক্রেতা সাধারণ পাই সে কথা মাথায় রেখে পণ্য মুল্য নির্ধারণ করেছি যা আশাকরি ক্রেতাদের সামর্থ্যের মধ্যে থাকবে।