পর্নসাইটের সঙ্গে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ওয়েবসাইট

প্রযুক্তি ডেস্কঃ  বাংলাদেশে বহুল প্রতিক্ষিত একটি আদেশ কার্যকর করা শুরু হয়েছে। পর্নোগ্রাফিক ওয়েবসাইট বন্ধ করার কাজ চলছে পুরোদমে। ইতিমধ্যেই ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার জানিয়েছেন বাংলাদেশ থেকে ২৪৪টি পর্নোগ্রাফিক সাইট বন্ধ করেছে তার মন্ত্রণালয়।

কীভাবে করা হয় এই কাজটি: এ কাজটি করা হয় নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটের ঠিকানা, তার আইপি কিংবা ডিএনএস ব্লক করার মাধ্যমে। এ ধরনের কাজগুলো আগে আইএসপি বা ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডারদের দিয়ে করানো হতো।

কিন্তু সরকার এবার একধাপ এগিয়ে আছে। এবার তারা আর লোকাল আইএসপির ওপর নির্ভর না করে সরাসরি আইআইজির (ইন্টারন্যাশনাল ইন্টারনেট গেটওয়ে) মাধ্যমে এই কাজটি করছে।

এতে করে যেসব আইএসপি নির্দিষ্ট কোনো আইআইজি ব্যবহার করে এবং ওই আইআইজিতে যদি কোনো ওয়েবসাইট ব্লক করা থাকে তবে সেই আইএসপির সব ব্যবহারকারী ব্লক করা কোনো ওয়েবসাইট ব্যবহার করতে পারবেন না।

এ পর্যন্ত সব কিছুই ঠিক আছে। তবে এই কাজটি করতে গিয়ে বাংলাদেশ থেকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ কিছু আইপি বা ওয়েবসাইটও ভুলবশত বন্ধ হয়ে গেছে যা এখনো কেউ খতিয়ে দেখছে না। অনেকে এখনো জানেনই না যে এসব সাইট বন্ধের প্রক্রিয়াতে আর কি কি সাইট ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, এই আইপি ব্লক করতে গিয়ে আইআইজি থেকে মাইক্রোসফট উইন্ডোজের হালনাদাগাদ করার সার্ভারটিও ব্লক হয়ে গেছে। এতে করে বাংলাদেশের উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহারকারীরা কোনো আপডেট করতে গেলে বাধার সম্মুখীন হবেন।

একই সঙ্গে ব্লক হয়েছে আন্তর্জাতিকভাবে বহুল ব্যবহৃত ই-কমার্স সেবা প্রদানকারী কোম্পানি Shopify এর মূল আইপিটিও। Shopify ব্লক হবার কারণে বহু ই-কমার্স ওয়েবসাইটও লোড হবে না। এতে করে ক্ষতিগ্রস্থ হবে বহু ই-কমার্স ব্যবসায়ী।

মাইক্রোসফটের হালনাগাদ করার সার্ভারের যে আইপিগুলো এই বাধার মুখে পড়েছে তা হল- 20.41.46.145 > www.update.microsoft.com.nsatc.net 13.86.125.233 > www.update.microsoft.com.nsatc.net যা আবার update.microsoft.com এই নামেও পরিচিত।

যখন উইন্ডোজের হালনাগাদ সার্ভারে পিং করা হচ্ছে তখন সার্ভারে পিং কমান্ড না পৌঁছাতে পেরে ১০০% তথ্য লস দেখাচ্ছে। একই অবস্থা Shopify এর আইপির ক্ষেত্রেও।

Shopify তার ব্যবহারকারীদের ওয়েবসাইট চালানোর জন্য একটি ডোমেইন myshopify.com ব্যবহার করে; যার আইপি 23.227.38.32 যা বাংলাদেশে আর লোড করা যাচ্ছে না। এতে করে বহু ই-কমার্স সাইট বন্ধ হয়ে আছে।

যারা এই ব্লক করার কাজে নিয়োজিত আছেন তারা সব কিছু যাচাই না করেই যদি একসঙ্গে অনেক কিছু ব্লক করার চেষ্টা করেন, তাহলে এ সমস্যা সমাধান হবে না। এই কাজটি করতে আরও সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত, যাতে করে একটি ওয়েবসাইট ব্লক করতে গিয়ে যেন পুরো সার্ভারই ব্লক না হয়ে যায়।

কারণ একটি সার্ভারে অনেক সাইট থাকতে পারে; যা একই আইপি শেয়ার করে। সেক্ষত্রে শুধুমাত্র পর্নোগ্রাফিক সাইটের ঠিকানা ব্লক করে বাকি সাইট যাতে ব্যবহার করা যায় সেই ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

error: লাল সবুজের কথা !!