নির্ভয়ে ভোট দিবেন, বিশৃঙ্খলা করলে কঠোর ব্যবস্থাঃ রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল

কলারোয়া প্রতিনিধিঃ শান্তিপূর্ণ-সুষ্ঠু-সুন্দর পরিবেশে সাতক্ষীরায় একটি মডেল নির্বাচন সৃষ্টির প্রত্যাশায় রিটার্নিং অফিসার ও সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল বলেছেন- ‘পছন্দের মনের মতো প্রার্থীকে নির্ভয়ে ভোট দেবেন। শান্তি, নিরাপত্তা ও সুন্দর আগামির জন্য সুষ্ঠু নির্বাচন জনগণের শক্তিই সম্ভব।’

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে সোমবার (৩ডিসেম্বর) বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে কলারোয়ার ৯নং হেলাতলা ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে আয়োজিত বিশেষ আইন শৃংখলা সংক্রান্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি, আমর্ড পুলিশ, বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার জেলার শীর্ষ কর্মকর্তা, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

সন্ত্রাসীদের প্রতি কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারণ করে জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল বলেন- ‘কোন সন্ত্রাসী কার্যক্রম বরদাশত করা হবে না। কোন ভোটারকে প্রভাবিত, ভয়ভীতি ও চাপ সৃষ্টির চেষ্টা করা হলে কঠিন মোকাবেলা সমুচিত জবাব দেয়া হবে। সন্ত্রাসীদের কঠোর ম্যাসেজ দিচ্ছি কোন নিরাপদ-নিরাপত্তা বিঘ্নিত করা হলে নির্বাচন কমিশনের আইন অনুযায়ী কোন ছাড় দেয়া হবে না।’

সাতক্ষীরায় বর্তমানে শান্তির সুবাতাসে অনন্য নজির স্থাপন হয়েছে উল্লেখ করে ভোটারদের উদ্দেশ্যে জেলা রিটার্নিং অফিসার আরো বলেন- ‘ভোট কেন্দ্রে যাতে নিরাপদে যেতে পারেন সেই শংকা দূর করতেই আজকের এই মিটিং। আপনারা ভোট দেবেন আর আমরা ভোট গ্রহন করে নির্বাচন কমিশনে পাঠাবো। আমি নিশ্চয়তা দিচ্ছি- আপনারা আপনাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দেবেন।’

তিনি আরো বলেন- ‘নিবার্চনের রোডম্যাপ অনুযায়ী আগামি ৯ডিসেম্বর প্রার্থীতা স্পষ্ট হবে। ১০তারিখে প্রতীক বরাদ্দের পর সকল রাজনৈতিক দলের প্রার্থী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা তাদের প্রচার-প্রচারণা চালাবেন। সেসময় কেউ বাঁধা সৃষ্টি করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও ইউএনও এবং ওসিসহ নির্বাচনে সংশ্লিষ্টদের উদ্দেশ্যে ডিসি এসএম মোস্তফা কামাল বলেন- ‘কেউ যাতে নির্বাচনের আচরণবিধি লঙ্ঘন না করতে পারে সেদিকে সজাগ থাকবেন। কেউ যাতে হয়রানী বা কষ্টের শিকার না হন তার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে। এবং তার ভোট দেয়ার নিশ্চয়তা সৃষ্টি করতে হবে।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার সাজ্জাদুর রহমান বলেন- ‘আগামি একাদশ সংসদ নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ মনে করে সাতক্ষীরাকে ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় শান্তির জনপদে পরিণত করা হয়েছে। সকলে নির্বাচনের বিধিমালা অনুসরণ করতে হবে। নাশকতাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আইনশৃংখলা রক্ষায় ভোটারদের যেকোন শংকা দূর করে আশান্বিত হওয়ার আহবান জানিয়ে এসপি সাজ্জাদুর রহমান আরো বলেন- ‘যার ভোট সেই দেবেন, যাকে খুশি তাকেই দেবেন। বিচার বিবেচনা করে ভোট দেবেন।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে খুলনা র‌্যাব-৬ এর সাতক্ষীরা ক্যাম্পের কমান্ডার মেজর মাহবুব বলেন- ‘নির্বাচন আচরণবিধি ও আইনশৃংখলা রক্ষা করবেন, পালন করবেন। যেকোন বিশৃংখলা রক্ষার্থে ও শৃংখলা আনতে র‌্যাব সর্বাত্মক চেষ্টা করবে।’ কেউ বিশৃংখলা করার চেষ্টা করলে আমাদের মোবাইলে যোগাযোগ করলে তাৎক্ষনিকভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

সাতক্ষীরা-১ আসনের কলারোয়ার সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার আর.এম সেলিম শাহনেওয়াজের সভাপতিত্বে ও সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন- পুলিশ সুপার পদে সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত সাতক্ষীরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইলতুৎমিশ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট অনিন্দিতা রায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেরিনা আক্তার, সহকারী পুলিশ সুপার হুমায়ুন কবির, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ- আশফিয়া সিরাত, আমিনুল ইসলাম, আরিফ আদনান, লিখন বনিক, ইদ্রজিত সাহা, আজহার আলী ও মুর্শিদা খাতুন, ডিজিএফআই’র শাখা অধিনায়ক রাশেদ সরোয়ার, শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপার বিদ্রোহ কুন্ডু ও আশরাফ হোসেন, ৩১ আনসার ব্যাটালিয়নের উপ-পরিচালক মোরশেদা খানম, কলারোয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন, থানার ওসি শেখ মারুফ আহম্মদ, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার গোলাম মোস্তফা, ইমাম পরিষদের পক্ষে মোয়াজ্জেম হোসেন, হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি সিদ্ধেশ্বর চক্রবর্তীসহ উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, সুধিজন ও অন্যান্যরা।

অনুষ্ঠান শেষে এই প্রথম নির্বাচনের ভোট কেন্দ্রে দায়িত্ব পাওয়া উপজেলার গ্রাম পুলিশদের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা প্রদান করেন জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার।

error: লাল সবুজের কথা !!