দেবহাটা রিসোর্স সেন্টারের ইন্সট্রাক্টরের সফল কার্যক্রমে মান সম্মত শিক্ষা বাস্তবায়ন

দেবহাটা ব্যুরো : সরকার প্রাথমিক শিক্ষাকে আরো আধুনিক ও যুগোপযোগী করার লক্ষ্যে বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করে চলেছে।

ইতিমধ্যে প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে শতভাগ সরকারী করনের যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত গ্রহন করাসহ বছরের শুরুতে শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যে বই বিতরন করা, শিক্ষকদের মান বৃদ্ধি করা ও মিড ডে মিল চালুসহ নানামুখী উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করছে। প্রতিটি উপজেলার শিক্ষকদের প্রশিক্ষনের জন্য রিসোর্স সেন্টার প্রতিষ্টা তেমনই একটি পদক্ষেপ।

এই রিসোর্স সেন্টারের মাধ্যমে বিভিন্ন পর্যায়ে শিক্ষকদের প্রশিক্ষনের মাধ্যমে শিক্ষার মান বৃদ্ধি করা হচ্ছে। দেবহাটা উপজেলায় জি.এম লোকমান হোসেন ইন্সট্রাক্টর হিসেবে ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর যোগদান করেন। তিনি যোগদানের পর হতে তিনি অফিসের সৌন্দর্য বর্ধনে পূর্বের ইন্সট্রাক্টরের অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করেন। অফিসের প্রশিক্ষণ ডাটাবেজ তৈরী করে প্রশিক্ষণ ডেপুটেশনের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনেন। প্রশিক্ষণ আয়োজন থেকে শুরু করে প্রশিক্ষণ সমাপ্তি পর্যন্ত উপজেলা শিক্ষা অফিসের সাথে সমন্বয় করে সার্বিক কাজ দক্ষতার সাথে সম্পন্ন করছেন। ইন্সট্রাক্টরের একান্ত প্রচেষ্টায় প্রত্যেক বিদ্যালয়ে একটা করে লেকচার টেবিল তৈরী করে তার নির্দেশনায় বিদ্যালয়ে কেনা উপকরণের পরিবর্তে পাঠ সংশ্লিষ্ট উপকরণ তৈরী করিয়ে শ্রেণীকক্ষে ব্যবহার করানো হয়।

এ ব্যাপারে ইন্সট্রাক্টরের নিকট থেকে শিক্ষকরা উপকরণের তালিকা সংগ্রহ করেন। জি.এম লোকমান হোসেন প্রতি মাসে প্রমাপ অনুযায়ী বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে বিদ্যালয় কার্যক্রম শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত বিদ্যালয়ে অবস্থান করে দুই এর অধিক শ্রেণী কার্যক্রম নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করেন। প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণীর শ্রেণী কার্যক্রম পরিদর্শন করেন এবং কোন কোন সময় তিনি প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণীর শ্রেণীকার্যক্রম পরিচালনা করেন। তিনি পরিদর্শনকালে বিদ্যালয়ের সকল শিশুর ঙহব ফধু ড়হব ডড়ৎফ পারগতা যাচাই করেন। শিশুরা সেটা না পারলে কিভাবে শিখাতে হবে তা শিক্ষকদের ভালভাবে বুঝিয়ে দেন। শ্রেণী কক্ষ, অফিসকক্ষ ও বিদ্যালয় সুসজ্জিতকরণ করান, শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের নীতি-নৈতিকতা শিক্ষা ও মেনেচলার জন্য উদ্বুদ্ধ করেন। সাবলিল পাঠক নিশ্চিত করার জণ্য তিনি মূল্যায়ন টুলস তৈরী করে পরীক্ষা নেন। টিফিনের সময় সরেজমিনে মিড ডে মিল পরিদর্শন করে ১০০% নিশ্চিত করার জন্য শিক্ষার্থীদের, অভিভাকদের ও শিক্ষকদের ভালভাবে নির্দেশনা প্রদান করেন।

তিনি বিভিন্ন বিদ্যালয়ের পাক্ষিক সভায় ও এসএমসি মিটিংয়ে মা/অভিভাবক সমাবেশে অংশগ্রহন করে বিভিন্ন নির্দেশনা প্রদান করেন। বিভিন্ন বিদ্যালয়ে উঠান বৈঠক, বৃক্ষরোপন, ডেঙ্গু প্রতিরোধের জন্য সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান, নারী ও শিশুপাচার রোধে উদ্বুদ্ধকরণ সভা ও বিদ্যালয়ে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন অভিযানে অংশগ্রহন করেন। তাঁর সার্বিক সহযোগিতায় জাইকার অর্থায়নে উপজেলা পরিষদ ও উপজেল শিক্ষা অফিসের মাধ্যমে উপজেলার ৫৯ টি প্রাথমিক বিদ্যালযের ৫৯ জন শিক্ষককে দুই দিন ব্যাপি মাল্টিমিডিয়া ব্যবহার করে পাঠদান করার জন্য প্রশিক্ষণ করানো হয়। তিনি প্রতিটি বিদ্যালয় থেকে প্রশিক্ষণ চাহিদা নিয়ে প্রতি তিন মাসে লিপলেট তৈরী করে পিটিআই সুপারিনটেনডেন্টের অনুমোদন সাপেক্ষে এক দিনের ব্রিফিং-এর মাধ্যমে শিক্ষকদের হাতে তুলে দেন। প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগের যে কোন প্রোগ্রাম, দিবস, অনুষ্ঠানে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহন করে সেটিকে সফলভাবে বাস্তবায়ন করা এবং উপজেলার সকল শিক্ষক, শিক্ষা অফিসার ও সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসারের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করে দেবহাটা উপজেলায় মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করার জন্য নিরলসভাবে কাজ করে চলেছেন।

error: লাল সবুজের কথা !!