তুর্কি সিরিজ দিরিলিস আর্তুগ্রুলের ‘আরতুক বে’ আর নেই

87
তুরস্কের জনপ্রিয় অভিনেতা আইবেক প্যাকচান। ফাইল ছবি
তুরস্কের জনপ্রিয় অভিনেতা আইবেক প্যাকচান। ফাইল ছবি

বিনোদন ডেস্ক : বিশ্ব কাঁপানো তুর্কি সিরিজ ‘দিরিলিস আর্তুগ্রুল’ সিরিজের প্রধান চরিত্র আরতুগ্রুলের সবচেয়ে কাছের বিশ্বস্ত সহচর আরতুক বে (প্রকৃত নাম-আইবেক প্যাকচান) আর নেই। ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে স্থানীয় সময় সোমবার ইন্তেকাল করেছেন। মৃত্যুর সময় তার বয়স হয়েছিল ৫১ বছর। খবর ডেইলি সাবাহর। 

খবরে বলা হয়, ১৯৭০ সালে জন্ম নেওয়া এ অভিনেতা মারসিন বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার বিভাগ থেকে গ্রাজুয়েশন ডিগ্রি অর্জন করেন।  

আইবেক প্যাকচানের মৃত্যুতে ভার্চুয়াল জগতে বইছে শোকের ছায়া। 

বিগত কয়েক বছরে তুরস্কে নির্মিত বিভিন্ন নাটক-সিনেমা পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

দিনদিন দর্শকদের আগ্রহের ভিত্তিতে এসব নাটক-সিনেমা মূল তুর্কিভাষা থেকে ডাবিং করা হচ্ছে নানা ভাষায়।

খুব অল্পসময়ে বিশ্বব্যাপী তুর্কি চলচ্চিত্রের অসংখ্য দর্শক গড়ে ওঠেছে।  এরমধ্যে উসমানীয় সাম্রাজ্যের গৌরবময় উত্থানের সত্য কাহিনি অবলম্বনে নির্মিত জনপ্রিয় তুর্কি সিরিজ ‘দিরিলিস আরতুগ্রুল’ এর দর্শক সবচেয়ে বেশি। 

বাংলাদেশের একটি প্রজন্ম রীতিমতো ‘দিরিলিস’ জ্বরে কাঁপছে। আরতুগ্রুলের সবচেয়ে কাছের বিশ্বস্ত সহচর আরতুক বে-এর মৃত্যুতে বাংলাদেশের তরুণদের অনেকেই ফেসবুকে এ শোক প্রকাশ করছেন। 

আজাদুল ইসলাম আদনান নামের একজন তার ফেসবুক টাইমলাইনে লেখেন, দূরত্বটা হাজার মাইলের হলেও আপনার অভিনয় মন কেড়েছে আমার মত সহস্র মানুষের। আপনি হৃদয়ে থাকবেন। ওপারে ভালো থাকবেন প্রিয় অভিনেতা। ভুল, ত্রুটি ক্ষমা করে আল্লাহ আপনাকে জান্নাতবাসী করুন, আমিন।

প্রসঙ্গত, দিরিলিস আরতুগ্রুলের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে এর আগেও যুক্তরাষ্ট্রে এক মেক্সিকান দম্পতিসহ অনেক মানুষ ইসলাম গ্রহণ করেছেন বলে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় খবর প্রকাশ হয়েছে। 

বাংলাদেশেও এ সিরিজটি সম্প্রচার করা হয়েছিল। মাছরাঙা টিভিতে ২ এপ্রিল ২০১৭ থেকে ‌দিরিলিস আরতুগ্রুল সিরিজ সম্প্রচার শুরু হয়। এই সিরিয়ালটি শুরু হওয়ার পর বাংলাদেশের বিভিন্ন শ্রেণির দর্শক মাছরাঙা টিভির প্রতি হুমড়ি খেয়ে পড়ে। এ সিরিজটি সম্প্রচারের পর থেকে তাদের টিআরপি অনেকাংশে বেড়ে গিয়েছিল বলে খবর পাওয়া গেছে।