তিন বছরে পূর্বাচলে শেখ হাসিনা স্টেডিয়াম

ক্রিকেটে বাংলাদেশে বেশ এগিয়ে যাচ্ছে। দারুণ দর্শক প্রিয়তা পেয়েছে দেশের মানুষের কাছে। জাতীয় দলের খেলা হওয়া মানে যেন একটা উৎসব। তাই বড় একটা স্টেডিয়ামের কথা অনেক দিন ধরেই ঘুরে ফিরে আসছে। সেই চিন্তার সূত্র ধরে, পূর্বাচলে হবে অত্যাধুনিক একটি স্টেডিয়াম। বিষয়টি বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। সেটি হবে বিসিবি’র নিজস্ব স্টেডিয়াম।

এমনিতে বাংলাদেশের সব ক্রীড়া স্থাপনার মালিক জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ (এনএসসি)। পূর্বাচলে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নিজস্ব স্টেডিয়াম হচ্ছে। শনিবার বোর্ড সভা শেষে বিসিবি সভাপতি জানান, সরকারের কাছ থেকে বিসিবি স্টেডিয়ামের জন্য জমি বরাদ্দ পেয়ে গেছে। আগামী তিন বছরের মধ্যে তারা শেখ হাসিনা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামের কাজ শেষ করে ফেলবেন বলেও জানান তিনি।

আর এ জন্য রাজধানীর পূর্বাচলে ৩৭.৪৯ একর জমি পেয়েছে বিসিবি। ওই জায়গাটি সরকারের কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা (টোকেন মানি) দিয়ে পাচ্ছে বিসিবি। এজন্য রোববারের ওই বোর্ড সভায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদও জানিয়েছে বিসিবি।

নাজমুল হাসান পাপন আরও জানান, ক’দিনের মধ্যেই স্টেডিয়ামের ডিজাইন ও পরামর্শকের জন্য আন্তর্জাতিক দরপত্র আহ্বান করা হবে। সেখানে বোর্ডের প্রতিধিনিও থাকবেন। বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘পুরো স্টেডিয়ামের কাজ আমরা নিজ খরচে করব। কমপক্ষে ৫০ হাজার দর্শক ধারণক্ষমতা সম্পন্ন স্টেডিয়াম তৈরি করা হবে। আগামী তিন বছরের মধ্যে স্টেডিয়ামটা সম্পূর্ণ করতে চাই আমরা।’

পূর্বাচলের স্টেডিয়ামে অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা থাকার কথা উল্লেখ করে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘আইকনিক কিছু একটা করতে চাচ্ছি আমরা। স্টেডিয়ামে একাডেমি থেকে শুরু করে ইনডোর, সুমিংপুল, জিমনেশিয়াম যা যা লাগে সব থাকবে। সঙ্গে পাঁচতারকা মানের একটি হোটেলও সেখানে চাচ্ছি।’ তবে সেখানে হোটেল বিসিবি বানাচ্ছে না বলেও জানান তিনি। স্টেডিয়াম নির্মানের জন্য কেমন খরচ হবে সেটাও এখন বলা যাচ্ছে না বলে উল্লেখ করেন বিসিবি সভাপতি।

error: লাল সবুজের কথা !!