সর্বশেষ সংবাদ

ডাক্তার সংকটে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল,২১লক্ষ মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় নিয়োজিত ডাক্তার ৩ জন

মোঃ খলিলুর রহমান : ডাক্তার সংকটে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল। ১০০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালে প্রায় ২১ লাখ মানুষের চিকিৎসা সেবায় বিশেষজ্ঞ ডাক্তার রয়েছেন মাত্র ৩ জন। সরকারি নিয়মানুযায়ী মঞ্জুরীতকৃত পদে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার থাকার কথা যেখানে ১৩ জন। সেখানে কর্তব্য রয়েছেন মাত্র ৩ জন।

সরজমিনে খোজ নিয়ে জানা যায় হাসপাতালে সিনিয়র বিশেষজ্ঞ ডাক্তার থাকার কথা ৬ জন কিন্তু কর্মরত আছে ২ জন। জুনিয়র বিশেষজ্ঞ ডাক্তার থাকার কথা ৭ জন রয়েছে ১ জন। সব চেয়ে অবাক করার বিষয় সেখানে ইএনটি,সার্জারী, অর্থ সার্জারী,চক্ষু, এ্যানেস্তেশীয়া ,শিশু, প্যাথলজী, বিষয় বিহীনসহ উল্লেখিত পদে সিনিয়র জুনিয়র মিলে ২ জন করে ডাক্তার থাকার নিয়ম থাকলেও কোন ডাক্তার নেই। মেডিকেল অফিসার ৬ জনের স্থলে রয়েছে ২ জন।

ডাক্তার সংকটের কারনে দীর্ঘদিন বৃহত এই জনগোষ্ঠী চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। কিন্তু হাসপাতালে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার না পেয়ে তাদের যেতে হচ্ছে বিভিন্ন ক্লিনিক ও বিভাগীয় শহরে। বিশেষ করে বিভিন্ন উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল হতে হতদরিদ্র খেটে খাওয়া মানুষেরা চিকিৎসাসেবা থেকে চরমভাবে বঞ্চিত হচ্ছে।

সূত্রে আরও জানা যায়, ১০০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসক সংকট চলছে দীর্ঘদিন ধরে। হাসপাতালটি জেলা সদরে হওয়ায় বিভিন্ন উপজেলাসহ পার্শ্ববর্তী জেলার কেশবপুর,ডুমুরিয়ার একাংশের রোগীরা চিকিৎসা সেবা নিতে আসেন। কিন্তু প্রয়োজনের তুলনায় চিকিৎসক সংকটের কারনে সেবা না পেয়ে বাধ্য হয়ে বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছে। ধনাঢ্য পরিবারের রোগীরা টাকা দিয়ে ক্লিনিকে বা শহরে সেবা নিলেও চরম ভোগান্তির শিকার সাতক্ষীরা জেলার দরিদ্র পরিবারের রোগীরা।

নাককান গলার ডাক্তার দেখাতে আসা রহিমা জানান,কোন বিশেষজ্ঞডাক্তার নাই কিভাবে ঔষধ খাব। অর্থ সার্জারী বিষয়ে চিকিৎসা নিতে আজগর জানান,এখানে কোন অর্থোপেডিক্স ডাক্তার নেই। প্রাইভেট ক্লিনিকে যাওয়া ছাড়া কোন উপায় নেই। চক্ষু বিষয়ে আবু সাইদ জানান, সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চোখ দেখাতে এসে কোন ডাক্তার নাই বাধ্য চলে যেতে হচ্ছে।

একাধিক রোগির অভিয়োগ শরীরে চর্মরোগ ও জ্বর নিয়ে হাসপাতালে আসি। হাসপাতালে ডাক্তার না পেয়ে নিরুপায় হয়ে স্থানীয় ১ প্রাইভেট ক্লিনিকে ৩০০ টাকা ভিজিট এবং ১৫০০টাকার পরীক্ষা করাই। সরকারি হাসপাতালে ডাক্তার না থাকায় গরীব মানুষের চিকিৎসা নাই। টাকার বিনিময় প্রাইভেট ক্লিনিকে ডাক্তার মিলে, না দিলে নাই। এদিকে ডেপুটেশনে ৯ জন মেডিকেল অফিসার আসলেও নেই কোন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার।

এদিকে একাধিক ব্যক্তির সাথে কথা হলে জানান মেডিকেল অফিসারদের মতো ডেপুটেশনে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার আনা গেলে সদর হাসপাতােেল আগত রোগীরা সেবা পেত। ডাক্তার সংকট বিষয়ে জানতে চাইলে সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন ডাঃ শেখ আবু শাহীন বলেন বিভিন্ন বিষয়ে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পদ শূন্য থাকার বিষয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। সঠিক ভাবে চিকিৎসা সেবা পেতে কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন জেলার সরকারি সেবা থেকে বঞ্চিত সাধারন মানুষ।

error: লাল সবুজের কথা !!