টানা ৮ দিন করোনা শনাক্ত হচ্ছে পাঁচশ’র ওপরে: ক্রমেই বাড়ছে

47

গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো তিনজনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এর পর থেকে আজ ৫ মে পর্যন্ত দেশে সরকারি হিসাব অনুযায়ী সর্বমোট আক্রান্ত হয়েছেন ১০ হাজার ৯২৯ জন।

সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইন্সটিটিউট-আইইডিসিআরের তথ্যেই দেখা যায় গত আট দিন ধরে দেশে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়ে চলেছে। লক্ষণীয় বিষয় হচ্ছে, গত ২৮ এপ্রিল থেকে ৫ মে পর্যন্ত টানা ৮ দিন ধরে পাঁচশোর ওপরে করোনা রোগী শনাক্ত হচ্ছেন।

আইইডিসিআরের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে দেয়া তথ্যমতে, গত ২৮ এপ্রিল (২৪ ঘণ্টায়) ৫৪৯ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। যা ছিল দেশে করোনা আক্রান্ত রোগীর প্রথম সর্বোচ্চ সংখ্যা। এরপর থেকেই আর পাঁচশে’র নিচে নামেনি এই সংখ্যা।

এর পর থেকে প্রতিদিনই আক্রান্তের রেকর্ড ভেঙে চলেছে। গত ২৯ এপ্রিল ৬৪১ জন, ৩০ এপ্রিল ৫৬৪, পহেলা মে ৫৭১, ২ মে ৫২২, ৩ মে ৬৬৫, ৪ মে ৬৮৮ এবং ৫ মে ৭৮৬ জন আক্রান্ত হন।

বতর্মানে আজ ৫ মে পর্যন্ত দেশে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন মোট ১০ হাজার ৯২৯ জন। নতুন করে আজ (মঙ্গলবার) মারা গেছেন ১ জন। এনিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা ১৮৩ জন।

তবে প্রথম দিকে ধীরে ধীরে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়তে থাকলেও গত কয়েকদিন ধরে সেই সংখ্যা কমে আসছে। এমনটাই দেখা যাচ্ছে আইইডিসিআরের তথ্যে।

এছাড়া নতুন আরও ১৯৩ জন সুস্থ হয়েছেন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৪০৩ জন।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর চীনের উহান শহরে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এরপর খুব দ্রুতই সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস। এবং মহামারীতে রূপ নেয়। এ পর্যন্ত সারা বিশ্বে আড়াই লক্ষাধিক মানুষ মারা গেছে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে। প্রাণঘাতী ভাইরাসটি বাংলাদেশেও আঘাত হানে। গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এবং এ রোগে আক্রান্ত প্রথম রোগীর মৃত্যু হয় ১৮ মার্চ।