ছাত্রলীগ সভাপতি চাঁদাবাজি মামলায় কারাগারে: বাদিকে প্রাণ নাশের হুমকিতে থানায় জিডি

161

নিজস্ব প্রতিনিধি : ছাত্রলীগ সভাপতি বলে কথা। এ তো আর মার্ডার কেচের মামলা না যে ফাঁশি হবে। চাঁদাবাজির মামলা এতে আর কি হবে? এরকম ভাষায় বাদিকে হত্যার হুমকি দেয় আসমাউল বাহিনীর ক্যাডারেরা।

গত রবিবার (১৫ মার্চ) তারিখে সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চাঁদাবাজি মামলায় চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিজ্ঞ বিচারক আসমাউলের জামিন না মঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছেন। এসময় বিজ্ঞ বিচারক বাকিদের জামিন মঞ্জুর করে অন্তবর্তীকালীন জামিন প্রদান করেন।

মামলার বাদি মো. জাবের হোসেনকে আদালত প্রাঙ্গনের বারন্দায় আসামীরা হত্যার হুমকি দেয়।এতে বাদি মো. জাবের হোসেন রবিবারে সাতক্ষীরা সদর থানায় উপস্থিত হয়ে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানা পুলিশের কাছে সাধারণ ডায়েরী করেন। সাতক্ষীরা থানায় সাধারণ ডায়েরী নং – ৮৯৫, তারিখ ১৫/০৩/২০২০ ইং।

থানা পুলিশের কাছে ডায়েরী সূত্রে জানা গেছে, বাদি মো. জাবের হোসেন আশাশুনি থানায় একটি বে-সরকারি এনজিও তে সমাজ উন্নয়ন কর্মকর্তা পদে কর্মরত আছেন। আসমাউল হুসাইন সহ ৫ জনের বিরুদ্ধে তার আশাশুনি থানার মামলা নং ২৭/১৯, তারিখ ৩০/১২/২০১৯ ইং,ধারা – ১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩৪২/৩৮৫/৩৮৬/৩৮৭/ পেনাল কোড। উক্ত মামলায় রবিবার আদালতে দিন ধার্য্য থাকায় উপস্থিত হয়। এসময় আসামীরা মামলা তুলে নিতে হুমকি প্রদর্শন করেন। জীবনে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। অপরদিকে আসমাউল হুসাইন জেলহাজতে যাওয়ার আগে বাদিকে বলেন, এ তো আর মার্ডার কেচের মামলা না যে ফাঁশি হবে। চাঁদাবাজির মামলা এতে আর কি হবে? তোকে জীবনে মেরে ফেলবো,শেষ করে ফেলবো বলে হুমকি দেয়।