কেশবপুরে ২ ভায়ের রোপন করা ইরি ধান জোরপূর্বক কেটে নিলো আরেক ভাই

1
লাল সবুজের কথা- Lal Sobujer Kotha

আজিজুর রহমান, কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি: কেশবপুরে ২ ভায়ের ১৪ শতক জমির ধান আরেক ভাই জোরপূর্বক কেটে নেওয়াসহ বসত-বাড়ির মাটি কেটে নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার কোমরপোল গ্রামের মৃত জালাল উদ্দীন গাইনের ছেলে মফিজ উদ্দীন গাইন সাংবাদিকদের জানান, আমার ও আমার ভাই মৃত নয়াবউদ্দীন গাইনের ২ জনের মিলে মাঠে ১৪ শতক জমি রয়েছে। ওই জমিতে ইরি মৌসুমী ধান রোপন করা হয়।

ওই ধান আমার আপন ভাই রহিজ উদ্দীন গাইন কিছু লোকজন নিয়ে কিছুদিন আগে ওই ধান জোরপূর্বক কাটতে থাকে। এসময় আমি বাঁধা দিতে গেলে ভাই রহিজ উদ্দীন আমাকে মারপিঠ করে ওই জমির প্রায় ১২ মণ ধান কেটে তার বাড়িতে নিয়ে যায়। এছাড়া আমার বসতবাড়ির পাশ থেকে প্রায় ৫ হাজার টাকার মাটি কেটে ক্ষতি সাধন করে রহিজ উদ্দীন গাইন।

এই নিয়ে আমি আবারও প্রতিবাদ করায় সে আমাকে মারপিঠ করতে থাকে। এসময় আমার মা মেহেরুন্নেছা (৭৫) ঠেকাতে গেলে তাকেও মারপিঠ করে ভাই রহিজ উদ্দীন গাইন। আমি ও আমার মা স্থানীয় চিকিৎসা নিয়েছিলাম। জমির ধান ও মাটি কাটার বিষয়ে সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদে ও স্থানীয়সহ বিভিন্ন স্থানে শালিস বৈঠক ডাকলেও আমি হাজির হলেও আমার ভাই রহিজ উদ্দীন গাইন শালিস বৈঠকে হাজির হয়না। বরং সে বিভিন্ন প্রকারের প্রকাশ্যে হুমকি ও ভয়-ভিতি প্রদর্শন করে চলেছে।

এ ব্যাপারে রহিজ উদ্দীন গাইনের কাছে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের জানান, আমার জমির উপর থেকে মাটি কেটেছি। আমার জমিতে লাগানো ধান আমি কেটেছি। মফিজ উদ্দীন গাইনের জমি থেকে ধান ও মাটি কাটার কোন প্রশ্নই আসে না।