কেশবপুরে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে টাকা ছিনতাই থানায় মামলা

14
লাল সবুজের কথা- Lal Sobujer Kotha

আজিজুর রহমান, কেশবপুর প্রতিনিধি: কেশবপুরে এক আড়ৎদার ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে প্রায় এক লাখ টাকা ছিনতাই করে নিয়ে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ৫ জনের বিরুদ্ধে কেশবপুর থানায় মামলা হয়েছে। গত ১২ ফেব্রæয়ারি রাতে উপজেলার আলতাপোল গ্রামের মোজাফফার বিশ্বাস বাদি হয়ে কেশবপুর থানায় মামলাটি করেছেন। মুমূর্ষু ওই ব্যবসায়ী বর্তমান ঢাকার নিউরো সায়েন্স ইনস্টিটিউটে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

মামলার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার আলতাপোল গ্রামের মোজাফফার বিশ্বাসের ছেলে মাসুদুজ্জামান দীর্ঘদিন ধরে কেশবপুর শহরের কাঁচা বাজারে আড়ৎদারের ব্যবসা করে আসছেন। বেশ কিছুদিন ধরে মাসুদুজ্জামানের সাথে একই গ্রামের রাশেদ শেখের পূর্বশত্রæতা চলে আসছিল।

গত ১০ ফেব্রæয়ারি রাত সাড়ে ৮টার দিকে মাসুদুজ্জামান কাঁচা বাজারে বিভিন্ন ব্যবসায়ীর কাছে থেকে টাকা আদায় করতে যায়। এ সময় পূর্বশত্রæতার জের ধরে রাশেদের নেতৃত্বে ৫/৬ জন যুবক ধারালো দা, লোহার রড দিয়ে মাসুদুজ্জামানকে এলোপাতাড়িভাবে কুপিয়ে ও পিটিয়ে মারাত্মক জখম করে। পরে অস্ত্রধারী যুবকেরা কাঁচামাল ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে তার আদায় করা নগদ ৯০ হাজার ২’শ টাকাসহ ব্যাগটি ছিনিয়ে নিয়ে চলে যায়। মুমূর্ষু ওই ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করে প্রমথে কেশবপুর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে রেফার করে।

সেখানেও অবস্থার অবনতি হলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্যে ঢাকার নিউরো সায়েন্স ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে সেখানকার চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। এ ঘটনায় ১২ ফেব্রæয়ারী রাতে তার পিতা মোজাফফার বিশ্বাস বাদি হয়ে মনিরামপুর উপজেলার আটঘরা গ্রামের মনি, তৌহিদ, আলতাপোল গ্রামের রাশেদ, জিয়ার ও মন্টুকে আসামী করে থানায় একটি মামলা করেন। যার নং- ৩।

এ ব্যাপারে কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবু সাঈদ বলেন, হামলায় ওই ব্যবসায়ীর মাথা গুরুতর জখম হয়েছে। মামলা হওয়ার পর আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।