কেশবপুরে বহিরাগত জুতা ব্যবসায়ীদের কারণে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত

আজিজুর রহমান, কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি : কেশবপুরে বহিরাগত জুতা ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন স্থানে কম দামে বিভিন্ন রকমের জুতা বিক্রির কারণে কেশবপুর বাজারের জুতা ব্যবসায়ীরা একেবারে ঝিমিয়ে পড়েছে।

যার ফলে ব্যবসায়ীরা এখন মানবেতর জীবন যাপন করছে। এই উপজেলায় বর্তমান ৩১টি জুতা ব্যবসায়ী দোকান রয়েছে। কেশবপুর বাজারের জুতা ব্যবসায়ী ভাই ভাই সু ষ্টোর, আলীম সু ষ্টোর, যশোর লিবার্টি, মায়ের দোয়া সু ষ্টোর, শাওন সু ষ্টোর, নিউ শাওন সু ষ্টোরের মালিকসহ অনেক ব্যবসায়ীরা জানান, বরিশাল থেকে ২০/২৫ জন বহিরাগত জুতা ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন রকমের জুতা ভ্যানে করে উপজেলার ত্রিমোহিনী, সাতবাড়িয়া, সাগরদাঁড়ি, জাহানপুর, চিংড়া, হাসানপুর, প্রতাপপুর, কেশবপুর সদর, গড়ভাঙ্গা, পাঁজিয়া, কলাগাছি, গৌরিঘোনাসহ বিভিন্ন হাট বাজার ও গ্রামে যেয়ে কম দামে বিভিন্ন রকমের জুতা বিক্রি করছে। যার কারণে ব্যবসায়ীরা দিনের পর দিন দেনা দায়ীক হয়ে পড়ছে। তাদের কারণে এসব দোকানে একেবারে বেচাকেনা ঝিমিয়ে পড়েছে। জুতা ব্যবসায়ীরা জানান, আমাদের দোকানে ৩ থেকে ৫ জন কর্মচারী থাকে। তাদের বেতন ও দোকান খরচ বাদে আমাদের কিছুই থাকে না। এখন একেবারে বেচাকেনা কম হয়ে গেছে। যার কারণে আমরা দিনে দিনে দেনা দায়ীক হয়ে পড়েছি।

ব্যবসায়ীরা আরো জানান, আমরা ব্যাংকসহ বিভিন্ন এনজিও থেকে লোন নিয়ে ব্যবসা করছি। কিন্তু বেচা কেনা একেবারে কম থাকায় এনজিওর টাকা দিতেও আমরা ব্যার্থ হচ্ছি। এভাবে চলতে থাকলে হয়তো একেবারে ব্যবসা বাণিজ্য বন্ধ হয়ে যাবে। একদিকে কর্মচারীর বেতন দিতে ব্যর্থ হওয়া আর একদিকে দিনে দিনে দেনা দায়ীক হওয়া মেনে নিতে পারছে না ব্যবসায়ীরা। বহিরাগত জুতা ব্যবসায়ীদেরকে কেশবপুর উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজারে জুতা বিক্রি বন্ধের জন্য প্রশাসনের কাছে হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন জুতা ব্যবসায়ীরা। এব্যাপারে কেশবপুর উপজেলা জুতা ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আব্দুল ওহাব বলেন, কয়েক মাস আগে বহিরাগত জুতা ব্যবসায়ীরা কেশবপুর বাজারে এসে যখন জুতা বিক্রি করতো না। তখন আমাদের দোকানের বেচাকেনা ভালো হতো। এখন তারা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে যেয়ে কমদামে বিভিন্ন রকমের জুতা বিক্রি করার কারণে আমাদের দোকানের বেচাকেনা একেবারে ঝিমিয়ে পড়েছে। যার কারণে আমরা দোকানের কর্মচারীদের সময়মত বেতনও দিতে পারছি না। বরং দিনে দিনে দেনা দায়ীক হয়ে পড়ছি। এছাড়া অনেক ব্যবসায়ীরা তাদের পরিবারের লোকজন নিয়ে মানবেতর সাথে জীবন যাপন করছে।

error: লাল সবুজের কথা !!