কেশবপুরে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে তথ্য গোপন ও পকেট কমিটি গঠনের চেষ্টার অভিযোগ

1
লাল সবুজের কথা- Lal Sobujer Kotha

আজিজুর রহমান, কেশবপুর প্রতিনিধি: কেশবপুরে এক প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে তথ্য গোপন ও পছন্দের ব্যক্তিদের নিয়ে পকেট কমিটি গঠনের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় শেফালী বেগম নামে এক বিদ্যোৎসাহী আগ্রহী প্রার্থী বাদী হয়ে প্রধান শিক্ষকের নামে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছে। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ভালুকঘর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কালীদাস ভট্টাচার্য্যরে বাড়ী একই গ্রামে হওয়ায় কোন নিয়ম-নীতি ও অভিভাবকদের মতামতের তোয়াক্কা না করে সম্পুর্ন অনিয়মতান্ত্রিকভাবে তার পছন্দের ব্যক্তিদের নিয়ে নির্বাচন ছাড়াই একটি পকেট কমিটি গঠনের জোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

গত ১৭-০৭-১৯ ইং তারিখে উপজেলার ৯টি প্রাইমারী স্কুলের মহিলা/পুরুষ বিদ্যোৎসাহী পদে চুড়ান্তভাবে ঘোষনা করা হলেও তিনি এই তথ্য গোপন রেখে প্রার্থীদের সাথে বিভিন্ন টালবাহানা শুরু করেছে । এমনকি লটারির মাধ্যমে মহিলা বিদ্যোৎসাহী পদটি আসবে বলে তিনি প্রার্থীদেরকে জানান। বিদ্যোৎসাহী সদস্য পদে গোপনীয়তাসহ ম্যানেজিং কমিটি গঠনে কালক্ষেপনের জন্য ঐ স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিভাবকসহ এলাকাবাসী ফুঁসে উঠেছে । এলাকাবাসীর দাবী নির্বাচনের মাধ্যমে কমিটি গঠন করা হোক। এঘটনায় সোমবার (০৫ আগষ্ট-১৯) মহিলা বিদ্যোৎসাহী প্রার্থী মোছাঃ শেফালী বেগম বাদী হয়ে প্রধান শিক্ষক কালীদাস ভট্টাচার্য্যরে বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, স্কুলের বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এ ব্যাপারে ভালুকঘর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কালীদাস ভট্টাচার্য্যরে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে মোবাইল বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।