সর্বশেষ সংবাদ

কেশবপুরে তালাক দেওয়া স্ত্রীকে আবারও বিয়ে করলেন স্বামী

আজিজুর রহমান, কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি: কেশবপুরে তালাক দেওয়া স্ত্রীকে আবারও বিয়ে করলেন স্বামী বলে মেয়ের পরিবার থেকে জানাগেছে। উপজেলার মূলগ্রামের সন্তোষ দাসের মেয়ে পিংকি রানী দাস (২০) সাংবাদিকদের জানান মণিরামপুর উপজেলার রামনাথপুর গ্রামের রাম দাসের ছেলে বলয় দাসের সাথে আমার মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরপর উভয় পরিবারে লোকজন প্রেমের সম্পর্ক জেনে ফেলায় উভয় পরিবারের সম্মত্তিতে যশোর বিজ্ঞ নোটারী পাবলিকের কার্যালয়ে এফিডেভিটের মাধ্যমে সনাতন রীতিতে ২০১৩ সালের ৭ জুলাই আমাদের বিবাহ হয়।

বিয়ের সময় স্বামীকে নগদ ৫০ হাজার টাকা সহ প্রায় ১ লক্ষ টাকার মালামাল দেওয়া হয়। বিয়ের পর থেকে আমাদের ভালভাবে সংসার চলতে থাকে। এরপর আমাদের পরিবারে মেঘনা নামের একটি কণ্যা সন্তান জন্ম গ্রহণ করে। সন্তান জন্ম গ্রহণের কিছুদিন পর থেকে আমার স্বামী বলয় দাস আমাকে বিভিন্ন সময় যৌতুকের দাবী এনে মারপিঠ করতো।

আমি নির্যাতন সইতে না পেরে আমার পিতা মাতাকে সবকিছু খুলে বলি। আমার পরিবার ও স্বামীর পরিবার ২০১৭ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারী মণিরামপুর উপজেলার ১১ নং ইউনিয়ন পরিষদে উভয় পক্ষের বসাবসির মাধ্যমে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। বিবাহ বিচ্ছেদের পর থেকে আমাদের যোগাযোগ বন্ধ ছিলো। এর কিছুদিন পর আমার স্বামী হঠাৎ একদিন আমার মোবাইল ফোনে ফোন দিয়ে বলে পিংকি তুমি কেমন আছো। পিংকির উত্তরে তার তালাক দেওয়া স্বামী বলয়কে বলে আমি ভালো আছি তুমি কেমন আছেন।

এই ভাবে ফোনে আলাপ চলতে চলতে তাদের আবার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত ৫ নভেম্বর বিকালে বলয় দাস তার তালাক দেওয়া স্ত্রী পিংকি দাসের গ্রামের বাড়িতে পিংকি দাসকে নিয়ে যেতে আসেন। এসময় পিংকি দাস তার স্বামীকে বলে স্ত্রীর স্বীকৃতি দিয়ে আমাকে বিবাহ করলে তোমার পরিবারে যেয়ে সংসার করবো। তখন বলয় দাস তার কণ্যা সন্তান মেঘনার ভবিষ্যতের কথা ভেবে ওই রাতেই স্থানীয় হিন্দু বিবাহ রেজিষ্ট্রার বিকাশ চন্দ্র দাসের মাধ্যমে তাদের আবারও বিবাহ হয়।

এ ব্যাপারে হিন্দু বিবাহ রেজিষ্ট্রার বিকাশ চন্দ্র দাস সাংবাদিকদের জানান ছেলে ও মেয়ের মতামতের মাধ্যমে তাদের বিবাহ হয়েছে। এব্যাপারে বলয় দাসের মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের জানান গত ৫ নভেম্বর বিকালে আমি কেশবপুর বাজারে গেলে সাধন দাস, আনন্দ দাসসহ ৩/৪ জন মিলে আমাকে জোরপূর্বক মটর সাইকেলে তুলে নিয়ে সাধনের বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার পর আমাকে মারপিঠ করে ওই রাতেই পিংকি রানী দাসের সঙ্গে আবারও আমার বিয়ে দেয়।

error: লাল সবুজের কথা !!