কেশবপুরে উপজেলা চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলামের ৭ লাখ টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান

68

আজিজুর রহমান, কেশবপুর প্রতিনিধি: কেশবপুর উপজেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কর্মহীনদের মাঝে উপজেলা চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলাম ৭ লাখ টাকা আর্থিক সহায়তা বিতরণ করেছেন।  সোমবার দুপুরে কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলাম জানান, উপজেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে এপর্যন্ত তিনি ৪ শত কর্মহীনদের মাঝে তাঁর নিজস্ব অর্থায়নে ৪ লাখ টাকা বিতরণ করেছেন।

এর মধ্যে ৫২ জন সাংবাদিককেও তিনি আর্থিক প্রনোদনা প্রদান করেছেন। এছাড়াও উপজেলা চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলাম অদ্যবধি উপজেলা পরিষদের রাজস্ব তহবিল থেকে উপজেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কর্মহীন অতিদরিদ্রদের মাঝে ৩ লাখ টাকা বিতরণ করেছেন। অপরদিকে উপজেলা চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলামের পূত্র সাগরদাঁড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী মুস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত তাঁর নিজস্ব তহবিল থেকে সাগরদাঁড়ী ইউনিয়য়নের ভ্যান চালক, নসিমন চালক, মোটর সাইকেল চালক, কমিমন চালক, ইজিবাইক চালক, আলমসাধু চালক, চায়ের দোকানদার-সহ ক্ষুদ্র ব্যাবসায়ী ও দিনমজুর ২৫ শত পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার নানা শ্রেনী পেশার মানুষ জানান, ২০০৮ সালে আওয়ামীলীগ সরকার গঠন করার পর এই প্রথম কোন উপজেলা চেয়ারম্যান দুর্যোগে সরাসরি সাংবাদিকসহ সাধারন মানুষের সেবায় এগিয়ে আসলেন।

এব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলাম তার প্রতিক্রিয়ায় জানান, জীবনে চাওয়া পাওয়ার দিকে তাকিয়ে কখনো রাজনীতি করিনি। শেষ বয়সে জনগন আমাকে যে দায়িত্ব দিয়েছে সেখানে বসে তাদের জন্য কিছু করতে পারা আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া। জননেত্রী দেশরত্ন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সম্মুখে থেকে যে যুদ্ধ করছেন আমরা তার সামান্য সৈনিক মাত্র। ১৯৭১ সালে জাতির জনকের ডাকে ঝাঁপিয়ে পড়ে পাক হানাদারদের পরাজিত করে একটি স্বাধীন পতাকা ছিনিয়ে এনে যে ভাবে বাংলাদেশের জন্ম হয়েছিল, এবারও তার সুযোগ্য কন্যার নেতৃত্বে করোনার বিরুদ্ধে আমরা জয়লাভ করে একটি পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ উপহার দেব। সেদিন বেশি দুরে নয়, করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় লকডাউন মেনে ঘরে থাকুন, সরকারকে সহযোগিতা করুন।

কেশবপুরে ত্রাণ তহবিলে যশোর জেলা পরিষদের সদস্য হাসান সাদেক ও পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা সাকেদের ব্যক্তিগত ৫০ হাজার প্রদান

কেশবপুর উপজেলায় করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় লকডাউনে কর্মহীন হতদরিদ্রদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী প্রদানের জন্য উপজেলা প্রশাসনের ত্রাণ তহবিলে যশোর জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব হাসান সাদেক ও কেশবপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা সাদেক ব্যক্তিগত ভাবে ৫০ হাজার টাকা প্রদান করেছেন। সোমবার সকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুসরাত জাহানের হাতে তাঁর দপ্তরে ৫০ হাজার টাকা হস্তান্তর করেন যশোর জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব হাসান সাদেক।