সর্বশেষ সংবাদ

কেশবপুরে আবু বকর আবুর প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত

আজিজুর রহমান, কেশবপুর প্রতিনিধি : যশোর জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও মজিদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চারবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান প্রয়াত আবু বকর আবুর প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী শুক্রবার নানান কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে কেশবপুর থানা ও পৌর বিএনপির উদ্যোগে সকাল ১১ টায় কবর জিয়ারত, বিকালে স্বরণ সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
কেন্দ্রীয় বিএনপির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও থানা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব আবুল হোসেন আজাদের সভাপতিত্বে দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত স্বরণ সভায় বক্তব্য রাখেন থানা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক আব্দুর রাজ্জাক, সাংগঠনিক সম্পাদক মশিয়ার রহমান, পৌর বিএনপি নেতা শেখ শহিদুল ইসলাম শহিদ, থানা বিএনপি নেতা রেজাউল ইসলাম, বিদ্যানন্দকাটি ইউনিয়ন বিএনরি আহŸায়ক মাস্টার কে এম খলিলুর রহমান, পাঁজিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা মকবুল হোসেন মুকুল, গৌরিঘোনা ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি বাবর আলী গাজী, সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক গোলাম মোস্তফা বাবু, সাগরদাঁড়ি ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ জাফর হাসান লাভলু, মজিদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা হুমায়ুন কবির পলাশ, সুফলাকাটি ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাষ্টার মহিউদ্দীন, মহিলা দলনেত্রী নুরুন্নাহার নুরি, কবরি বেগম প্রমূখ। আবু বকরের পরিবারের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন তার ভাইপো হুমায়ুন কবির। স্বরণ সভায় দোয়া পরিচালনা করেন, কেশবপুর শাহী মসজিদের ইমাম হোসাইন আহম্মেদ।

এছাড়া ওই দিন সকালে আলহাজ্ব আবুল হোসেন আজাদ দলীয় নেতা-কর্মিদের সাথে নিয়ে আবু বকরের কবর জিয়ারত করেন ও তার পরিবারের সদস্যদের খোজ নেন। উলে¬খ্য, অবিবাহিত ৭২ বছর বয়সী আবু বকর আবু ১৯৮০ সালে থানা বিএনপির সাংগঠনি সম্পাদক, ১৯৮২ সালে থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক, ১৯৮৭ সালে থানা বিএনপির আহ্বায়ক, ১৯৮৮ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত থানা বিএনপির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ২০০৯ সালে যশোর জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি নির্বাচিত হয়ে দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি মজিদপুর ইউনিয়ন থেকে ৪ বার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেন। আবু বকর আবু গত সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নপত্র ক্রয় ও জমা দেয়ার জন্য গত বছরের ১২ নভেম্বর ঢাকা যান। সেখানে পল্টন এলাকার মেট্রপলিটন হোটেলের ৪১৩ নম্বর কক্ষে অবস্থান নেন। ১৯ নভেম্বর বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাতকার অনুষ্ঠানে অংশ নেয়ার জন্য সেখানে অবস্থান করতে থাকেন। ১৮ নভেম্বর রাত ৮ টার পর রাজধানীর পল্টন এলাকা থেকে তিনি নিখোজ হন। নিঁখোজের ৪ দিন পর ঢাকার মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে তার লাশ পাওয়া যায়।

error: লাল সবুজের কথা !!