কলারোয়া সীমান্তে বিজিবি দোষ ঢাকতে অসহায় যুবকে ধরে মারপিট করে পুলিশে দেয়ার অভিযোগ

জুলফিকার আলী,কলারোয়া(সাতক্ষীরা)প্রতিনিধিঃ কলারোয়া সীমান্তে এক বিজিবির অনৈতিক আচারনের ঘটনায় ফাসঁ করায় এক নিরহ মানুষের বাড়ীতে হামলা চালানো হয়েছে। এঘটনার প্রতিবাদ করাতে ওই বিজিবি সদস্যকে ক্যাম্প থেকে বদলী করা হয়।

এঘটনার প্রতিশোধ নিতে কথিত ফেনসিডিল উদ্ধারের ঘটনা দেখিয়ে ওই নিরহ ব্যক্তিকে ৩নং অজ্ঞাতনামা আসামী করে একটি মামলা দেয়া হয়। পরে মামলাটি কলারোয়া থানার এসআই রইচ উদ্দিন তদন্ত করেন। এর মধ্যে ওই বিজিবি হাবিঃ শহিদুল ইসলাম মাদরা ক্যাম্পে যোগদান করেন।

পরে খবর পায় যে-পূর্বের ঘটনায় জাড়িত থাকা সেই উপজেলার ভাদিয়ালী গ্রামের মৃত নাসির উদ্দীনের ছেলে আইনুল ইসলাম (২৬) বাড়ীর পাশে স্কুলের সামনে দাড়িয়ে এলাকার এক ব্যক্তির সাথে কথা বলছে। ঠিক সেই মুহুতে বৃহস্পতিবার রাত ৮টার সময় লাঠি নিয়ে ধাওয়া করে অসহায় আইনুল ইসলামকে ধাওয়া দিয়ে ধরে নিয়ে বেধড়ক মারপিট করে নিলা ফোলা জখম করে। পরে দোষ এড়িয়ে নিতে কলারোয়া থানা পুলিশকে খবর দিয়ে থানা পুলিশের কাছে আইনুল ইসলামকে তুলে দেয়া হয়।

আইনুল ইসলামের স্ত্রী রুপা খাতুন জানান-তার স্বামী এঘটনার সাথে জড়িত নয়। তাকে হয়রানী করার জন্য বিজিবি মিথ্যা মামলা দিয়েছে। তিনি আরো বলেন-৪মাস পূর্বে হাবিলদার শহিদুল ইসলাম ভোর রাতে তার বাড়ীতে যায়। ঘরের মধ্যে ঢুকে তাকে ও তার স্বামীকে ধরে টানা হেচড়া করে।

এক পর্যায়ে রুপার হাত ধরে টাকা হেচড়া শুরু করে। পরে তাদের ডাক চিৎকারে পাশ্ববর্তী লোকজন এগিয়ে আসলে তাদের ছেড়ে দিয়ে চলে যায়। পরে এঘটনায় তার বিরুদ্ধে বিজিবি ক্যাম্পে অভিযোগ দেয়া হয়। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দেয়াতে সে তাদের উপর ক্ষিপ্ত থাকে।

error: লাল সবুজের কথা !!