কলারোয়ার শ্রীরামপুর হাইস্কুলের পিকনিক বাসের সাথে আরেক বাসের সংঘর্ষে চালক নিহত।। আহত ২০

42

অনলাইন ডেস্ক : কলারোয়ার শ্রীরামপুর হাইস্কুলের পিকনিক বাসের সাথে আরেক বাসের সংঘর্ষে চালক নিহত হয়েছে। আহত হয়েছেন অন্তত ২০জন। আহতদের মধ্যে ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকরাও রয়েছেন। বুধবার সকাল ৮টার দিকে শার্শার কুঁচিমোড়া- হাড়িখালী নামক স্থানে যশোরের নাভারণ-সাতক্ষীরা মহাসড়কে এ দূর্ঘটনা ঘটে।

দু’টি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে খবির উদ্দীন নামে লোকাল বাসের চালক নিহত হয়েছে। তার বাড়ি যশোরে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ঘন কুয়াশায় যশোরের শার্শায় দু’টি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে বাসের চালক নিহত হয়েছে। আহত হয়েছেন অন্তত ২০ জন।

যশোরের নাভারণ হাইওয়ে পুলিশের ওসি জহির উদ্দিন বলেন, বুধবার সকাল ৮টার দিকে ঘটনাটি ঘটেছে নাভারন-সাতক্ষীরা মহাসড়কের শার্শার হাড়িখালি নামক স্থানে। এতে লোকাল বাসের চালকের মৃত্যু হয়েছে। তাৎক্ষনিক তার পূর্ণাঙ্গ পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

শার্শার বাগআঁচড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক (তদন্ত) সুকদেব রায় বলেন, সাতক্ষীরা কলারোয়ার বুঝতলা বিবিআরএনএস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা গ্রীন বাংলা পরিবহনের বাসে করে নাটোর রাজবাড়ী পিকনিকে যাচ্ছিলেন।

এ সময় যশোর থেকে ছেড়ে আসা সাতক্ষীরাগামী একটি লোকাল বাসের সাথে পিকনিকের বাসটির মুখোমুখি ধাক্কা লাগে। এতে লোকাল বাসের চালকের মৃত্যু হয়েছে এবং পিকনিকের বাসের ২০ জনের আহত হয়েছে। আহতদের নাভারণের বুরুজবাগান স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ যশোর ও সাতক্ষীরার বিভিন্ন হাসপাতালে ও প্রাইভেট ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

কলারোয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আবদুল হামিদ জানান, ‘বুঝতলার শ্রীরামপুরের বিবিআরএনএস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-কর্মচারীরা মিলে শিক্ষা সফরে যাচ্ছিলেন।
শার্শার কুচেমোড়ার মোড় হাড়িখালি নামক স্থানে কুয়াশার কারণে দু’টি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অনেকেই আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ৭জন শিক্ষার্থী ও আরো কয়েকজন শিক্ষক-কর্মচারী। তাদের মধ্যে একজন ছাত্রী ও বনিআমিন নামে এক শিক্ষকের অবস্থা গুরুতর।’