কলারোয়ার কেঁড়াগাছিতে অসহায় সোনাই সরদারের পৈত্রিক জমি জবর দখলের চেষ্টার অভিযোগ

13

জুলফিকার আলী,কলারোয়া প্রতিনিধিঃ কলারোয়ার কেঁড়াগাছিতে অসহায় সোনাই সরদার (৬০) তার পৈত্রিক জমি দখল নিতে পারছেন না। তিনি উক্ত জমি দখল পেতে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপার সৃ-দৃষ্টি কামনা করেছেন। সোমবার বিকালে সরেজমিনে দেখা গেছে ও ক্ষতিগ্রস্ত উপজেলার কেঁড়াগাছি ইউনিয়নের হঠাৎগঞ্জ বাকসা গ্রামের মৃত. কায়েম সরদারের ছেলে সোনাই সরদার জানান- এসএ ২৮৬৮ নং খতিয়ানে ডিপি ১৮৬২ নং সাবেক ৬০৬৩ হাল ১৩১১৮ দাগে ১৬ শতক জমির মধ্যে দাবীকৃত ০.৩৬২ শতকর পৈত্রিক জমি ওই এলাকার মোকছেদ আলীর ছেলে জিল্লুর রহমান ও জিল্লুর রহমানের স্ত্রী তাহমিনা খাতুন দখলের চেষ্টা করছে।

এমনকি ওই জমিতে তারা জোরপূর্বক দখল করে দোকানঘর নির্মানের চেষ্টা করছে। বাধা দিতে গিয়ে অসহায় সোনাই সরদার এর পরিবারের ৭ সদস্যকে তারা মারপিট করে জখম করে। এর পরে তারা উল্ট ৩টি মিথ্যা ও হয়রানী মূলক মামলা দায়ের করে।

বর্তমানে অসহায় সোনাই সরদারের পরিবারটি জিল্লুর রহমানের অত্যচারে অতিষ্ঠিত হয়ে উঠেছে। অসহায় সোনাই সরদার তার জমিতে দোকান ঘর বানাতে গেলে তারা মারপিটের হুমকি দিচ্ছে। তিনি নিরুপায় হয়ে সাতক্ষীরার বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ফৌজদারী কার্য্য বিধির ১৪৫ ধারামতে একটি পিটিশন মামলা দায়ের করেন। মামলাটি আদালত সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন ভুমি কর্মকর্তাকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দেন। পরে গত ১১ নভেম্বর সোনাবাড়ীয়া ইউনিয়ন ভুমি অফিসের সহকারী কর্মকর্তা শেখ আনিছুর রহমান ঘটনা স্থান পরিদর্শন করে এক তরফা ভাবে বিবাদীর পক্ষ নিয়ে তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করেন।

ওই স্থানটি ফাকা থাকলেও ভুমি কর্মকর্তার বিবাদীর পক্ষ নিয়ে ঘর-বাড়ী রয়েছে মর্মে তদন্ত প্রতিবেদনের উল্লেখ্য করেন। ক্ষতিগ্রস্ত সোনাই সরদার আরো জানান-তার (দলিলকৃত) পৈত্রিক জমি জিল্লুর রহমান প্রতারণা মুলক ভাবে রেকর্ড করে নিয়েছে। এদিকে আদালতে মামলা চললেও জিল্লুর রহমান আদালতের আদেশ অমান্য করে বিরোধপূর্ণ জমি বার বার দখলের চেষ্টা করছে এবং মামলার বাদীকে হুমকি দিচ্ছে।

এদিকে নিরহ অসহায় সোনাই সরদার তার পৈত্রিক জমি জবর দখলের হাত থেকে রেহাই পেতে আদালতের সুষ্ঠ বিচার দাবী করেছেন।