করোনা: কলারোয়া-ধানদিয়ার খেয়া ঘাটটি লক ডাউনের পরও অবাধে লোক পারাপার

110

হাবিবুল্লাহ বাহার ।। কলারোয়া ধানদিয়ার বাঁশের সাকোর খেয়া ঘাটটি কাটাবেধে বেড়া তৈরি করে লক ডাউন ঘোষনা করলেও কোন ক্রমে রক্ষা করা যাচ্ছে না উক্ত ঘাটটি।জনগণ অবাধে কাটার বেড়া ভেঙ্গে ফাকা করে পারাপার হচ্ছে কোন বাঁধা ছাড়াই। যার ফলে মরণঘাতি (COVID-19) করোনা ভাইরাসের ঝুুুকিতে পড়ছে কলারোয়া উপজেলার জয়নগর ইউনিয়নবাসি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি জানান, কেশবপুর উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের সাবেক মেম্বর কামরুল ইসলাম উক্ত ঘাট ইজারা নেয়। যার ফলে প্রত্যেক ব্যাক্তির কাছ থেকে দুই/তিনগুন বৃদ্ধিতে অর্থের বিনিময়ে জনগণ পারাপারে সুযোগ করে দিচ্ছে। এ ব্যাপারে জয়নগর ইউনিয়নের ধানদিয়া ৯নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য খালিদ হাসান টিটু জানান, গত কয়েক দিন আগে সেনা বাহিনী ও উপজেলা প্রশাষনের উপস্থিতিতে ধানদিয়া খেয়া ঘাটটি কাটা দিয়ে বেড়া তৈরি করে লকডাউন ঘোষনা করা হয়।জনগন কাটার বেড়া ভেঙ্গে আবাধে পারাপার হচ্ছে। আমি বাঁশ দিয়ে উক্ত কাটার বেড়া মেরামত করেছি।কিন্তু শত চেষ্টা করেও ধানদিয়া খেয়া ঘাটে জনগণ পারাপারে রক্ষা করতে পারছি না। যার ফলে করোনা ভাইরাসের ঝুকিতে রয়েছে জয়নগর ইউনিয়নসহ কলারোয়া উপজেলাবাসী। তিনি আরো জানান, উক্ত খেয়াঘাটের লকডাউন রক্ষার্থে লোক পারাপার বন্ধ করতে হলে খেয়াঘাটের বাঁশের সাকো কেটে বিচ্ছিন্ন করার কোন বিকল্প পথ নেই।

এলাকাবাসি উক্ত খেয়া ঘাটের বাঁশের সাকোর বিচ্ছন্ন করে এলাকার মহামারি করোনা ভাইরাস ঝুকি কমাতে জেলা প্রশাসক/উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।