এসে গেছে পুরো শরীর স্ক্যান করার যন্ত্র

মানুষের রোগের চিকিৎসায় স্ক্যানিং প্রযুক্তি এখন হাতের নাগালে। কিন্তু পুরো শরীর নিমেষেই স্ক্যান করে থ্রিডি ছবি দেখাতে পারে—এমন যন্ত্র এত দিন ছিল না। সম্প্রতি বিশ্বের প্রথম মেডিকেল ইমেজিং স্ক্যানারে প্রথমবারের মতো স্ক্যান করে সফলতা পেয়েছেন মার্কিন বিশেষজ্ঞরা।

এ যন্ত্রের মাধ্যমে ২০ থেকে ৩০ সেকেন্ডেই পুরো শরীর স্ক্যান করা যায়। যন্ত্রটির নাম এক্সপ্লোরার। আইএএনএসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউক্লিয়ার মেডিসিন বিভাগের গবেষকেরা বলছেন, এ পদ্ধতিতে আরও উন্নত চিকিৎসা দেওয়া যাবে এবং রোগ শনাক্ত করা সুবিধা হবে। এতে নতুন চিকিৎসাপদ্ধতি নিয়ে গবেষণাও করা যাবে।

এক্সপ্লোরার নামের স্ক্যানার যন্ত্রটিতে পজিট্রন এমিশন টমোগ্রাফি (পিইটি) ও এক্স-রে কম্পিউটেড টমোগ্রাফির (সিটি) সমন্বয়ে ৪০ গুণ দ্রুতগতিতে ছবি পাওয়া যায়। অন্যান্য স্ক্যানারের তুলনায় দূর থেকে রেডিয়েশন ধরতে পারে।

গবেষক র‍্যামসে বাদাওয়ি বলেন, ছবিতে যে ডিটেইল পাওয়া যায়, তা চমক দেওয়ার মতোই। প্রচলিত পিইটি স্ক্যানে যেসব ছবি পাওয়া যায় না এতে তাও ধরা সম্ভব। মানুষের ক্ষেত্রে যে ধরনের তথ্য প্রয়োজন হয়, অন্য যন্ত্রে তা এতটা বিস্তারিত পাওয়া সম্ভব নয়।

প্রথম স্ক্যান করা ছবিটি সম্পর্কে শিকাগোতে অনুষ্ঠিতব্য রেডিওলজিক্যাল সোসাইটি অব নর্থ আমেরিকার এক সম্মেলনে জানানো হবে।

১৩ বছর আগে ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউক্লিয়ার মেডিসিন বিভাগের প্রধান র‍্যামসে ও ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, ডাভিসের অধ্যাপক সিমন চেরি পুরো শরীর স্ক্যান করার যন্ত্রের ধারণা দেন।

গবেষক চেরি বলেন, এক্সপ্লোরার চিকিৎসা ক্ষেত্রে ও রোগ নির্ণয়ে দারুণ প্রভাব ফেলবে। অঙ্গপ্রত্যঙ্গ ও কোষে কী ঘটছে, এ স্ক্যানারের ছবিতে তা ধরা পড়বে। শরীরে কোন অংশে কতটুকু গ্লুকোজ যাচ্ছে বা রক্তপ্রবাহের বিষয়টিও মাপা যাবে।

error: লাল সবুজের কথা !!