এম.জে.এফ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ে দুর্নীতি: নলতার আজহারুলের বিরুদ্ধে দুদকে অভিযোগ

425

নিজস্ব প্রতিবেদক : সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ উপজেলার ভাড়াশিমলায় অবস্থিত এম.জে.এফ বিশেষ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের পরিচালক আজহারুল ইসলামের বিরুদ্ধে প্রতারক, দূর্নীতিবাজ, চরিত্রহীন, পরসম্পদলোভী এবং নারী কেলেঙ্কারীর অভিযোগ এনে গত ১১ মার্চ দূর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)কে অভিযোগ দায়ের করেছে এম.জে.এফ বিশেষ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মচারীগন।

অভিযোগ পত্রানুযায়ী জানা যায়, সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার ভাড়াশিমলা নামক গ্রামে এম.জে.এফ বিশেষ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও মানবাধীকার জনকল্যান ফাউন্ডেশন (এম.জে.এফ) এর নির্বাহী পরিচালকের পরিচয় দিয়ে প্রতিবন্ধীদের ছবি দেখিয়ে স্কুলের শিক্ষক-কর্মচারী, এবং বিভিন্ন ব্যক্তি প্রতিষ্ঠানের মালিকের নিকট থেকে প্রায় কোটি টাকার উর্দ্ধে হাতিয়ে নিয়ে নিজে আত্মসাৎ করেছে। ইতোপূর্বে প্রতিবন্ধীদের দেখিয়ে বিদ্যালয়ের নামে চট্রগামের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নজরুল ইসলামের থেকে ১৩,১০,০০০/- (তের লক্ষ দশ হাজার টাকা) নিয়ে প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে দাতার চোঁখে ধুলো দিয়ে প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের নামে জমি ক্রয় না করে নিজের ছেলে ও ব্যক্তিগত এনজিও’র নামে জমি ক্রয় করে। আজহারুলের প্রতারণার ফাঁদ জানাজানি হলে স্কুলের শিক্ষক ও কর্মচারীরা ২০১৮ সালের ২৮ মার্চ কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর আজহারুলের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করিলে উপজেলা সমাজসেবা অফিসার শেখ সাহিদুল রহমান ও উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মোস্তাফিজুর রহমানকে প্রধান করে কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার দুই সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেন। উক্ত তদন্তে আজহারুল ইসলামের দূর্নীতি প্রমাণিত হয়। এবং টাকার হিসেব জানতে ৬ লক্ষ টাকা সরকারী মন্ত্রণালয়ে ব্যয় করেছেন বলে তিনি জবানবন্দী দেন।

সেই জিরো থেকে আজ হিরো আজহার প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের অর্থ আত্মসাৎ করে নলতা মৌজায় জমি ক্রয় করেছে। যা সে কখনো কল্পনায়ও ভাবতে পারেনি, তা আজ অসহায় প্রতিবন্ধীদের ছবি বিক্রি করে তা সম্ভব করেছে।


এছাড়াও দূর্নীতিবাজ আজহারুল বিদ্যালয়ের শিক্ষিকাদের চাকরীর বিশেষ সুবিধা দেখিয়ে অশ্লিল আচারণ ও কু- প্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগও উঠেছে।

এদিকে তার দূর্নীতি প্রমাণিত হওয়ায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশে ভাড়াশিমলায় অবস্থিত এম.জে.এফ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে তাকে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকায় সম্প্রতি নলতার মাঘুরালী নামক গ্রামে কিছু সুবিধাবাদী ব্যক্তিদের স্বার্থের লোভ দেখিয়ে আবারও মানুষের সাথে প্রতারণার উদ্দেশ্য লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিতে সাইন বোর্ড সহ বিভিন্ন কাগজপত্রে সাতক্ষীরা-৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. আ ফ ম রুহুল হক এমপির নাম ব্যবহার করে একই নামে নতুন করে প্রতিবন্ধী স্কুল খুলে আবারও প্রতারণার ফাঁদ পেঁতেছে।