একুশ মাথা নোয়াবার নয়

69

মো. জাবের হোসেন : একুশে মানে মাথা নত না করার দিন। আজকের এ দিনটি বাংলাদেশ সহ পশ্চিমবঙ্গ তথা সমস্ত বাংলা ভাষা ব্যবহারকারী জনগণের গৌরবোজ্জ্বল একটি দিন। বাঙালি জনগণের ভাষা আন্দোলনের মর্মন্তুদ ও গৌরবোজ্জ্বল স্মৃতিবিজড়িত একটি দিন হিসেবে চিহ্নিত হয়ে আছে।

বায়ান্ন’র আজকের এই দিনে বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে আন্দোলনরত ছাত্রদের উপর পুলিশের গুলিবর্ষণে রফিক, জব্বার, শফিউল, সালাম, বরকত সহ অনেকেই শহীদ হন। রাষ্ট্রভাষার দাবিতে পৃথিবীর কোনো দেশের মানুষ প্রাণ দিয়েছেন এমন নজির খুব কমই রয়েছে।

আজকের এই দিনটির বিজয় থেকে বাঙালিরা স্বাধীনতার মন্ত্রে উজ্জ্বীবিত হয়ে দেশকে স্বাধীন করেছিলো। দিনটিকে ইউনেস্কো স্বীকৃতি দিয়েছে অনেক আগেই। দিনটি শুধু যে দেশে পালিত হয় তা না। দিনটির মর্যাদা এতটাই বেশি যে সমগ্র জাতিসংঘের সদস্যভূক্ত দেশগুলোও দিবসটি পালন করে থাকে। একুশে ফেব্রুয়ারি দিবসটি বার বার মনে করিয়ে দেয় এদেশের মানুষ কখনো বর্হিশত্রুর কাছে মাথা নিঁচু করে না। একুশে ফেব্রুয়ারি দিনটি দেশের প্রতিটা মানুষের সামনের এগিয়ে যেতে প্রেরণা দেই। বায়ান্ন’র ভাষা আন্দোলন থেকে অনুপ্রেরণায় তলাবিহীন ঝুড়ি থেকে আজ বর্হিশ্বের কাছে এক গ্রহণযোগ্য রাষ্ট্রের মর্যাদায় আসীন হয়েছে। বার বার আমরা একুশের প্রেরণায় এগিয়ে যাবো, তাহলে এগিয়ে যাবে দেশ। বিশ্বের কাছে ছড়িয়ে যাবে দেশের এ কীর্তি। রয়ে যাবে একুশের স্মৃতি।