এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা পুনঃনিরীক্ষণে ৩৬০৮ জনের ফল পরিবর্তন

26

৯টি বোর্ড এইচএসসি ও সমমানের পুনঃনিরীক্ষায় তিন হাজার ৬০৮ জনের ফল পরিবর্তন হয়

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড বাদে ৯টি বোর্ড এইচএসসি ও সমমানের পুনঃনিরীক্ষার ফল গতকাল শনিবার প্রকাশ হয়েছে। এতে তিন হাজার ৬০৮ জনের ফল পরিবর্তন হয়। এর মধ্যে নতুন করে জিপিএ-৫ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ফেল থেকে পাসও করেছে বেশ কিছুসংখ্যক শিক্ষার্থী। তবে বেশিরভাগেরই গ্রেড পরিবর্তন হয়েছে। গতকাল স্ব-স্ব শিক্ষা বোর্ড তাদের ওয়েবসাইটে এ ফল প্রকাশ করে।

বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, পুনঃনিরীক্ষায় মোট চারটি দিক দেখা হয়। এগুলো হলো উত্তরপত্রে সব প্রশ্নের সঠিকভাবে নম্বর দেওয়া হয়েছে কি না, প্রাপ্ত নম্বর গণনা ঠিক রয়েছে কি না, প্রাপ্ত নম্বর ওএমআর (অপটিক্যাল মার্ক রিডার) শিটে উঠানো হয়েছে কি না এবং প্রাপ্ত নম্বর অনুযায়ী ওএমআর শিটে বৃত্ত ভরাট ঠিক আছে কি না। তবে পুনঃনিরীক্ষায় নতুন করে কোনো খাতা দেখা হয় না।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নম্বর গণনা ও বৃত্ত ভরাটেই যদি এত ভুল হয় তাহলে নতুন করে ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদনকারীদের খাতা দেখা হলে ফলাফলে আরো অনেক পরিবর্তন আসত। উল্লেখ্য, গত ১৯ জুলাই এইচএসসি ও সমমানের ফল প্রকাশিত হয়। এতে উত্তীর্ণ হয় আট লাখ ৫৮ হাজার ৮০১ জন। পাসের হার ছিল ৬৮ দশমিক ৯১ শতাংশ। এই ফল মনঃপূত না হওয়ায় শিক্ষার্থীরা ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করে।

বিভিন্ন বোর্ড ঘেঁটে দেখা যায়, সবচেয়ে বেশি ফল পরিবর্তন হয়েছে ঢাকা বোর্ডে। এ বোর্ডে মোট এক হাজার ৮৮৮ জনের ফল পরিবর্তন হয়েছে। যার মধ্যে ফেল থেকে পাস করেছে ৫৪০ জন। আর নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৬৪ জন। এই বোর্ডে ফল পরিবর্তনের জন্য ৪৬ হাজার ৩৭০ জন পরীক্ষার্থী পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করে।

চট্টগ্রাম বোর্ডে ৪০৯ জনের ফল পরিবর্তন হয়েছে। এর মধ্যে নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০৮ জন, ফেল থেকে পাস করেছে ৭৩ জন। দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডে মোট ৩৬২ জনের ফল পরিবর্তন হয়েছে। এর মধ্যে ফেল থেকে পাস করেছে ২৪ জন, নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬২ জন। সিলেট বোর্ডে মোট ৫৫ জনের ফল পরিবর্তন হয়েছে। এর মধ্যে ফেল থেকে পাস করেছে ১৭ জন, নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৫ জন। কুমিল্লা বোর্ডে মোট ২৩৯ জনের ফল পরিবর্তন হয়েছে। এর মধ্যে ফেল থেকে পাস করেছে ৬৪ জন ও নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে সাতজন। বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে মোট ১৮ জনের ফল পরিবর্তন হয়েছে। এর মধ্যে নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে দুজন, ফেল থেকে নতুন করে কোনো শিক্ষার্থী পাস করেনি। যশোর বোর্ডে মোট ১০৮ জনের জিপিএ পরিবর্তন হয়েছে। এর মধ্যে ফেল থেকে পাস করেছে ৪১ জন, নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২১ জন। বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে মোট ৩৮৪ জনের ফল পরিবর্তন হয়। এর মধ্যে ফেল থেকে পাস করে ৩৮০ জন। আর গ্রেড পরিবর্তন হয় চারজন শিক্ষার্থীর। এ বোর্ডে ২৮ বিষয়ের আট হাজার ৯২৮টি উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষা করা হয় বলে বোর্ড সূত্রে জানা যায়। মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড আলিম পরীক্ষার পুনঃনিরীক্ষার ফল প্রকাশ করে। এ বোর্ডের আলিম পরীক্ষায় ৭২ জন শিক্ষার্থীর ফল পরিবর্তন হয়। এর মধ্যে ফেল থেকে পাস করেছে ১৯ জন, নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭ শিক্ষার্থী। বাকিদের গ্রেড পরিবর্তন হয়েছে। এ বোর্ডে চার হাজার ৯২৩ শিক্ষার্থী ১০ হাজার ৭৯৮টি উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করে।