আশাশুনি ও শ্যামনগরে আবরার ফাহাদের স্মরণে অংকুর ফাউন্ডেশনের “এক মুঠো ভাত” কর্মসূচি

56

আবু সাঈদ, প্রতাপনগর প্রতিনিধি ।। সারা দেশের ন্যায় সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর ও শ্যামনগরের পদ্মপুকুর ইউনিয়নে বুয়েটের মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের স্মরণে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন অংকুর ফাউন্ডেশন আয়োজিত “এক মুঠো ভাত” কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। (১৮ জুন) শুক্রবার দুপুর ১২ টায় পদ্মপুকুর ইউনিয়নের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ফ্রেন্ডশিপ ক্লাবের কার্যালয়ে “এক মুঠো ভাত” কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

৬ অক্টোবর ২০১৯, বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেক্ট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। দীর্ঘ ১ বছর ৯ মাস অতিবাহিত হলেও ঐ হত্যার বিচার কার্যের তেমন কোন অগ্রগতি হয়নি। তারই প্রতিবাদে এবং আবরার ফাহাদের স্মরণে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন অংকুর ফাউন্ডেশন সুবিধা বঞ্চিত মানুষদেরকে নিয়ে “এক মুঠো ভাত” শিরোনামে ভিন্নধর্মী এক কর্মসূচির আয়োজন করে। এ সময় কর্মসূচির অংশ হিসেবে কুড়িকাহুনিয়া ও বন্যাতলা গ্রামের সুবিধা বঞ্চিত ৫০ টি পরিবারের মাঝে বিশেষ আইটেমের রান্না করা খাবার পরিবেশন করা হয়।

অনুষ্ঠানে বন্যাতলা ফ্রেন্ডশিপ ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এস.কে মোকাররম বলেন, দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠে যদি ছাত্রদের নিরাপত্তা না থাকে তবে, ভবিষ্যতে এমন অনেক আবরারকে হারাতে হবে। সুতরাং আবরার হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাই।

অনুষ্ঠানে অংশনেয়া বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ইমদাদুল ইসলাম বলেন, যেখানে আবরারের মতো শিক্ষার্থীর জীবনের নিরাপত্তা বিধান সম্ভবপর হয়নি, সেখানে আমরা কোন আশা নিয়ে উচ্চশিক্ষা লাভের জন্য বাইরে যাব। শিক্ষার্থীদের শঙ্কা ঘুচাতে দ্রুত আবরার হত্যার উপযুক্ত বিচার চাই।

কুড়িকাহুনিয়া গ্রামের সুবিধা বঞ্চিত শরিফা খাতুন বলেন, আমরা যতদুর জেনেছি আবরার ফাহাদ একজন মেধাবী ও ভালো স্বভাবের ছাত্র ছিল। সামনে যেন আর কোন মায়ের কোল খালি না হয় সে জন্য আবরার হত্যার কঠিন শাস্তি হওয়া দরকার। নইলে ভয়ে আমাদের ছেলে-মেয়েরা আর বাইরে লেখা-পড়া শিখতে যেতে চাইবে না।