আত্ন প্রকাশের প্রত্যয়ে লাল সবুজের কথা অনলাইন পত্রিকার আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

66

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: “আত্ন প্রকাশের প্রত্যয়ে লাল সবুজের কথা” শিরোনামে লাল সবুজের কথা অনলাইন পত্রিকার আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০ ঘটিকায় পাটকেলঘাটা থানার ০২ নং নগরঘাটা ইউনিয়ন পরিষদ হলরুমে প্যানেল চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুস সামাদের সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয়।অনুষ্ঠানের শুরুতে সকল বীর শহীদদের স্বরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

উক্ত অালোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক পত্রদূত পত্রিকার সম্পাদক, সাতক্ষীরা জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শহীদ স.ম অালাউদ্দীনের কণ্যা লায়লা পারভীন সেজুঁতি।

বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন পাটকেলঘাটা প্রেসক্লাবের সভাপতি শেখ জহুরুল হক,সাধারণ সম্পাদক মোঃ অাব্দুল মতিন,নগরঘাটা পোড়ার বাজার বণিক সমিতির সভাপতি ও কবি নজরুল বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক ডা: সাইদুল অালম বাবলু,পোড়ার বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অালহাজ্ব মোঃ মোতাহার হোসেন,ইউপি সচিব মোঃ অাব্দুর রাজ্জাক,উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ তারিকুর রহমান,মোঃ জহুরুল ইসলাম।

অারো উপস্থিত ছিলেন লাল সবুজের কথা নিউজ পোর্টালের সহ-সম্পাদক মোঃ মামুন হোসেন,বার্তা সম্পাদক ইয়াসিন অালি,পাটকেলঘাটা প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ রিপন হোসাইন,সাংবাদিক মুকুল হোসেন,সাংবাদিক মইনুল অামিন মিঠু, ডা: ঠাকুরপদ, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী তোফাজ্জেল হোসেন,অনারুল,সাইফুল,রিপন,উজ্বল,ফারুক সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

আলোচনা সভাটি পরিচালনা করেন লাল সবুজের কথা অনলাইন পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক মোঃ জাবের হোসেন।

অালোচনা সভায় বক্তরা বলেন নগরঘাটা থেকে সর্বপ্রথম শহীদ স.ম অালাউদ্দীন ছাড়া অাজ অবধি কেউ এরকম একটা উদ্যোগ নেয়নি।সে অর্থে অাজকের দিনটি অামাদের কাছে একটি অানন্দের দিন,স্মরণীয় দিন।

অতিথিরা বলেন, সংবাদ পত্র হলো সমাজের প্রতিচ্ছবি।এটি একটি ভালো কাজ।বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করতে হবে।কোনো হলুদ সাংবাদিক যেনো প্রবেশ করতে না পারে এখানে।সামাজিক উন্নয়ন,এলাকার উন্নয়ন,সরকারের প্রচারণা করতে হবে।

এসময় তারা অারো বলেন নিউজ পোর্টালটি সাতক্ষীরা তথা দেশে অালোকিত হোক।ছড়িয়ে যাক দেশের প্রতিটি ঘরে ঘরে।

বক্তরা এসময় শহীদ স.ম অালাউদ্দীনের কথা তুলে ধরে বলেন অাধুনিক সাতক্ষীরার স্বপ্নদ্রষ্টা ছিলেন অালাউদ্দীন।তিনি বেঁচে থাকতে সাতক্ষীরা বাসীর জন্য অনেক কাজ করে গেছেন।যার জন্য এখনো অামরা তাকে স্বরণ করি।তিনি অামাদের অন্তরে যুগ যুগ ধরে বেঁচে থাকবেন।

তারা বলেন, লাল সবুজ মানে দেশের কথা, মুক্তি যুদ্ধের স্বপক্ষের কথা বহন করে।সে অর্থে লাল সবুজের কথা অনলাইন পত্রিকাটি উন্নয়নের সহযোগী হবে বলে অাশা করছি।

অল্প দিনেই হাটি হাটি পা পা করে লাল সবুজের কথা নিউজ পোর্টালটি অাজ দাঁড়িয়ে গেছে।অামরা চাইবো এমন একদিন অাসবে যেদিন নিউজ পোর্টালটি প্রিন্ট ভার্সনে রুপান্তরিত হবে।পত্রিকাটি এগিয়ে যাক অামরা সেটাই কমনা করি।

এসময় বক্তরা সাংবাদিক সুবর্ণা নদীকে হত্যার বিচার দাবি করেন। শহীদ স.ম অালাউদ্দীনকে হত্যা,মানিক সাহা,হুমায়ূন কবির সহ অসংখ্য সাংবাদিকদের হত্যা করা হয়েছে, হুমকি দেয়া হচ্ছে।এর বিচার করতে হবে।সাবাইকে অপরাধীর বিরুদ্ধে স্বেচ্ছার হতে হবে বলে জানান।

প্রধান অতিথি লায়লা পারভীন সেঁজুতি তার বক্তব্যে বলেন,অাজকের এই অায়োজন লাল সবুজের কথা অনলাইন পত্রিকাটিকে সমৃদ্ধ করবে এটা বলার অপেক্ষা রাখেনা।সাংবাদিকরা সামজের দর্পন বা অায়না স্বরুপ।প্রকৃতপক্ষে অায়না বটে, তবে সে অায়নাটি যদি অায়নার মত হয় চকচকে করে তবেই সেটি কিন্তু অামাদের সমাজের চিত্র তুলেধরে উপস্থাপন করতে সক্ষম হবে।সাংবাদিকরা সমাজের উন্নয়নের ভূমিকা রাখে।

এসময় প্রধান অতিথি দৈনিক পত্রদূত পত্রিকার কথা তুলে ধরে বলেন, অামি এমন একটি পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছি,শুধু সাংবাদিকতা নয় বাবার চিন্তা -চেতনা ও ভাবনা ছিলো সাধারণ মানুষের পাশে থাকা।এই চেতনা অামি অামার ছোটো বেলা থেকে দেখে দেখে বড় হয়েছি।যেদিন অামার বাবা শহীদ হন তারপর থেকে বাবার চিন্তা চেতনাকে অামি নিজের মধ্যে লালন-পালন করতে থাকি।তারপর অামি অনেক ছোটো বয়সে দৈনিক পত্রদূত পত্রিকার হাল ধরি।সেই থেকে দীর্ঘ ২৩ বছর অত্যন্ত সুনামের সহিত অামি পত্রদূত পত্রিকাকে বাঁচিয়ে রেখেছি।তিনি অারো বলেন পত্রদূত পত্রিকা অাজ পর্যন্ত সাতক্ষীরায় যে ভূমিকা রেখেছে সেটি অন্য কোনো পত্রিকা রাখতে পারিনি।

এসময় তিনি অারো বলেন, সংবাদ সেটি, যেটি ঘটেছে সেটি নয়

সংবাদ সেটি যেটি ভেতরে এখনো লুকায়িত রয়েছে,যেটি ঘটতে পারে সেটিই সংবাদ।

সেই সংবাদকে কিন্তু বের করা সাংবাদিকের সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ।জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে কিন্তু এই চ্যালেঞ্জ নিয়ে সাংবাদিকদের সামনে এগিয়ে যেতে হয়।

দল-মত নির্বিশেষে অামাদেরকে এগিয়ে অাসতে হবে।সাংবাদিকতা করতে গেলে ঝুকি থাকবে,সেটি মেনে নিয়েই সামনে অগ্রসর হতে হবে।সাংবাদিকতায় ভালো-মন্দ,উন্নয়ন,সমাজে ব্যাধি সকল কাজই উপস্থাপন করা মূল দ্বায়িত্ব।

এসময় তিনি বলে সামনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে সরকারে উন্নয়নের কথা জনগনের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে হবে।তথ্য প্রযুক্তির অবাধ বিচরণ অামাদের অনেক দূরে নিয়ে এসেছে যেটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষেই সম্ভব হয়েছে।

প্রিন্ট মিডিয়ার থেকে ইলেকট্রিক মিডিয়ার ভূমিকা অনেক বেশি। এখানে তাৎক্ষনিক সংবাদ পরিবেশন করা যায়।এসময় তিনি লাল সবুজের কথা অনলাইন পত্রিকার সাফল্য কামনা করেন।