আইন পেশা এখন ব্যবসা হয়ে গেছে: প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনসৈয়দ মাহমুদ হোসেন

132

অনলাইন ডেস্ক : প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, আইন পেশা একটি সেবামূলক পেশা। অসহায়, অসচ্ছলদের জন্য একজন আইনজীবীকে শতকরা ১০টি মামলা ফ্রি করে দেওয়া উচিত।

তিনি বলেন, আইনজীবীরা এক সময় টাকাও চাইতেন না। গাউনের পেছনে পকেট থাকত। সেখানে ফি দিত। পকেটে কি দিল তা আইনজীবী দেখতেন না। কিন্তু এখন আইন পেশা ব্যবসা হয়ে গেছে। 

মঙ্গলবার একটি মামলার ভার্চুয়াল শুনানিতে আপিল বিভাগের আইনজীবীদের উদ্দেশে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ওই সময় সংশ্লিষ্ট মামলার আইনজীবী যুক্ত ছিলেন না। পরে আদালতে যুক্ত হয়ে তিনি সময় প্রার্থনা করেন। এ সময় আদালত বলেন, অ্যাডভোকেট অন রেকর্ড হবেন আর শুনানির সময় উপস্থিত থাকবেন না, তা কেমনে হয়। এটি কি ছেলেখেলা পেয়েছেন। কেউ না থাকলে স্টেট ডিফেন্স (রাষ্ট্রীয় খরচে নিযুক্ত আইনজীবী) আইনজীবী নিয়োগ দিয়ে মামলা শেষ করে দেব। তবে এসব মামলা পরিচালনার জন্য রাষ্ট্রীয় ডিফেন্স আইনজীবীদের জন্য বরাদ্দকৃত টাকার পরিমাণ বাড়ানো উচিত বলে মন্তব্য করেন আদালত।  

এ সময় আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী বলেন, দেশের বাইরে তো নতুন করে আইনজীবীদের রিনিউ (লাইসেন্স নবায়ন) করতে হয়। সেখানে তখন ব্যাখ্যা দিতে হয় কয়টা মামলা প্রো বোনো (জনস্বার্থে) করেছেন। তা না হলে লাইসেন্স রিনিউ করতে দেয় না। তখন যুক্ত থাকা জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মুনসুরুল হক চৌধুরী বলেন, আমাদের এখানে এটা হলে তো ভালোই হয়। আমরাও চাই। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, এটা করা যায়। তিনি বলেন, রাষ্ট্র নিযুক্ত (যারা আইনজীবী রাখতে পারে না, তাদের জন্য নিয়োগ দেওয়া হয়) আইনজীবীদের সম্মানী বাড়ানো উচিত। এ সময় অন্য আইনজীবীরাও ভার্চুয়ালি সংযুক্ত ছিলেন।