সর্বশেষ সংবাদ

অবশেষে নগরঘাটায় মেয়ের হাতে মা হত্যার ঘটনায় মামলা দায়ের,অাসামী টুম্পা পলাতক

নিজস্ব প্রতিনিধি: পাটকেলঘাটার নগরঘাটা গ্রামে মেয়ের রডের আঘাতে মা মমতাজ বেগমের মৃত্যুর ঘটনায় অবশেষে থানায় মামলা হয়েছে। এসআই আসাদুজ্জামান বাদী হয়ে টুম্পা খাতুনকে (২৫) আসামী করে পাটকেলঘাটা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে, যাহার নং ১২.৯.১৮/৫

উল্লেখ্য গত ১০ সেপ্টেম্বর সোমবার সকাল ৮ টার দিকে নগরঘাটা গ্রামের মৃত আব্দুস সবুর সরদারের স্বামী পরিত্যাক্তা কন্যা বহু বিবাহের স্বাক্ষী, টুম্পা খাতুন পারিবারিক কলহের জেরে তার মা মমতাজ খাতুনকে ঝগড়ার এক পর্যায়ে রড দিয়ে সজোরে আঘাত করে।

এতে মমতাজ খাতুন মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরে এলাকার লোকজন তাকে উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন,খুলনা মেডিকেলে নেয়ার সময় পথে তিনি মারা যান।পরে পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়।

এলাকার লোকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, হত্যাকারী টুম্পা একজন প্রতারক।সে ধনী লোকের ছেলেদের প্রেমের ফাঁদে ফেলে উচ্চ কাবিননামা করে বিয়ে করে।বিয়ের কয়েক মাস বা বছর খানেক পরে নানা ঝামেলা দেখিয়ে সংসারে অশান্তি সৃষ্টি করে।পরে ডির্ভোস চায়।এভাবে ৫/৭ টির মত টুম্পা বিয়ে করেছে।

এছাড়াও সে মাদকের সাথে জড়িত। পাটকেলঘাটা থানা পুলিশ টুম্পার ঘর সার্চ করে ১০০ টি কন্ডম,মাদক গ্রহণের ইনজেকশন,একটি করাত সহ মাদকের অারো সরাঞ্জম পায় ।টুম্পা এখন কোটিপতি বনে গেছে অল্প দিনেই।সর্বশেষ সাতক্ষীরা সংরক্ষিত মহিলা এমপি রিফাত অামিনের ছেলের বউ ছিলো,তাদের ঘরে ২ বছরের একটি সন্তানও অাছে।

এলাকার লোকের সাথে কথা বলে অারো জানা যায়,টুম্পার সখ্যতা উচ্চ পর্যায়ের রাজনীতিবিদদের সাথে,সেই সাথে সরকারী উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা সহ পুলিশের সাথে তার উঠা-বসা।এজন্য এলাকাবাসী ধারণা করছে নিহত মমতাজ বেগমের হত্যার বিচায় হয়তো সুষ্ঠু ভাবে হবেনা।এলাকাবাসীর দাবি মা হত্যা মামলার অাসামী টুম্পাকে অাইনের অাওতায় এনে যথাযথ শাস্তি দেয়া হোক।

পাটকেলঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ রেজাউল ইসলাম জানান, মা হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। আসামী পলাতক রয়েছে। আমরা তৎপর। যেকোন সময় আসামী আটক হবে।

error: লাল সবুজের কথা !!